আজকে মাইনাস ওয়ানের কথা শোনা যাচ্ছে।

0
46
আজকে মাইনাস ওয়ানের কথা শোনা যাচ্ছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, আজকে মাইনাস ওয়ানের কথা শোনা যাচ্ছে। কিন্তু মাইনাস টু-এর কুশীলবরা এখনো বেঁচে আছেন। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে আমি বলতে চাই, আপনিও কিন্তু মাইনাস টু-এর একজন ছিলেন। যেদিন খালেদা জিয়া মাইনাস হবেন, তারপর বেশিক্ষণ লাগবে না-মুহূর্তের মধ্যে আপনিও মাইনাস হয়ে যাবেন। অতএব সাধু সাবধান।’

আজ শুক্রবার দুপুরে ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবে সম্মিলিত ছাত্র ফোরাম আয়োজিত এক স্মরণ সভায় খন্দকার মোশাররফ হোসেন এসব কথা বলেন। বিএনপির সাবেক সহসাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন আহম্মেদ পিন্টুর তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকার যদি বলে বিএনপির সঙ্গে নির্বাচনের বিষয়ে কোনো সমঝোতা হবে না। তাহলে সমঝোতার দরকার নেই। জনগণ এবং বিএনপির বন্ধু রাষ্ট্রগুলো যেটা চায়-সেটা হলো, আগামী নির্বাচন গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক হোক। আর এটা হতে হলে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড ও নিরপেক্ষ সরকার লাগবে। খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে।

খালেদা জিয়ার কারাদণ্ডের বিষয়ে খন্দকার মোশাররফ বলেন, সরকার আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে খালেদা জিয়ার কারাবাস দীর্ঘায়িত করছে। এটার একটিই উদ্দেশ্য, একাদশ জাতীয় নির্বাচনে খালেদা জিয়া ও বিএনপিকে মাইনাস করা। তিনি আরও বলেন, সরকারের ‘নিয়ন্ত্রিত বিচার বিভাগের’ মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না। গণজাগরণের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

আগামী বাজেট বিষয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, এবারের বাজেটে ৩৫ থেকে ৪০ হাজার কোটি টাকা কাটছাঁট করতে হয়েছে। কারণ রাজস্ব আদায় হয়নি। গত বছরের বাজেট টার্গেট বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। সেখানে তার চেয়ে বড় বাজেট করার অর্থ কী? একমাত্র উদ্দেশ্য, নির্বাচনী বছরে দেশের জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করা।

পিন্টুর মৃত্যুর বিষয়ে খন্দকার মোশাররফ বলেন, পিন্টুর মৃত্যুর কারণ তাঁকে চিকিৎসা দেওয়া হয়নি। সুতরাং এর জন্য যারা দায়ী দেশের জনগণ একদিন তাদের বিচার করবে। বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী ও চৌধুরী আলমসহ বিএনপির অনেক নেতা নিখোঁজ হয়েছেন। অনেককে ক্রসফায়ারে হত্যা করা হয়েছে। এসব বিচারবর্হির্ভুত হত্যাকাণ্ডের বিচার হবে।

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক নাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here