এক লাখ টাকাসহ (দুদক) ফাঁদে আটকা পড়েছেন এক সরকারি কর্মকর্তা।

0
89
এক লাখ টাকাসহ (দুদক) ফাঁদে আটকা পড়েছেন এক সরকারি কর্মকর্তা।

ঘুষের এক লাখ টাকাসহ দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) ফাঁদে আটকা পড়েছেন এক সরকারি কর্মকর্তা। তিনি সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের সাঁটলিপিকার এ কে এম শহীদুজ্জামান।

আজ সকালে নিজ দপ্তর থেকে তাঁকে ঘুষের টাকাসহ হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে দুদকের একটি দল। সংস্থার প্রধান কার্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগ প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

দুদক সূত্র জানায়, সাতক্ষীরা সদর থানার দেবনগর বেগম রোকেয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মেহেদী হাসান তাঁর বিদ্যালয়ের উন্নয়নের জন্য জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে তিন লাখ টাকা অনুদানের আবেদন করেন। ওই আবেদন জমা দেওয়ার সময় এ কে এম শহীদুজ্জামান প্রধান শিক্ষকের কাছে অনুদানের ৩০ শতাংশ ঘুষ দাবি করেন। শিক্ষককে তিনি বলেন, অনুদান পেতে হলে ঘুষ ওই টাকা দিতে হবে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক বিষয়টি দুদককে জানালে, সব বিধিবিধান অনুসরণ করে দুদক খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মো. আবুল হাছানের তত্ত্বাবধানে একটি বিশেষ দল গঠন করে। সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. মহাতাব উদ্দীনের নেতৃত্বে একটি দলকে ফাঁদ মামলা পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় আজ কমিশনের বিশেষ দলের সদস্যরা সকাল থেকেই সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের চারদিকে ওত পেতে থাকেন। বেলা সাড়ে ১১টায় জেলা পরিষদের সাঁটলিপিকার এ কে এম শহীদুজ্জামান যখন নিজ দপ্তরে বসে ঘুষের এক লাখ টাকা নিচ্ছিলেন, ঠিক তখনই দুদকের দলটি ঘুষের টাকাসহ তাঁকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে।

এ বিষয়ে দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. মহাতাব উদ্দিন সাতক্ষীরা মডেল থানায় একটি মামলা করেছেন।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here