ওষুধের দোকানেই অস্ত্রোপচার, শিশু রাফিক হাসানের মৃত্যু

0
90

চার মাস বয়সী শিশু রাফিক হাসানের পিঠে একটি টিউমার হয়েছিল। হাতে টাকা নেই বলে উদ্বিঘ্ন রিকশাচালক বাবা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে পারেননি একমাত্র ছেলেকে। কাছের ওষুধের দোকানে নিয়ে গেলে চার হাজার টাকা চুক্তিতে নিজেকে চিকিৎসক পরিচয় দানকারী দোকানদার দোকানের বেঞ্চে শুইয়ে কেটে ফেলে শিশুটির পিঠের টিউমার। পরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মৃত্যু হয় শিশুটির। শ্রীপুরের মাওনা চকপাড়া মেডিকেল মোড় এলাকায় শুক্রবার সকালে ঘটে এ ঘটনা।

জানা যায়, পার্শ্ববর্তী সিংগারদিঘী গ্রামের রিকশাচালক আল আমীন ও তার স্ত্রী রানী আক্তার তাদের চার মাসের শিশুপুত্রকে মাহবুবুল আলমের ওষুধের দোকানে নিয়ে যান। কিছুদিন ধরেই আজুগীরচালা গ্রামের কাজীম উদ্দিন মাস্টারের ছেলে আলম তার দোকানে বিভিন্ন অপারেশন করে আসছিলেন।

নিহত শিশুর মা রানী আক্তার জানান, শুক্রবার সকালে শিশু রাফিককে নিয়ে আলমের ফার্মেসিতে গেলে আলম নিজেই অপারেশন করতে চান। এক হাজার টাকা অগ্রিম নিয়ে রাফিকের অপারেশন শুরু করেন। একটু পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ দেখে নিজেই ভয় পেয়ে তাড়াতাড়ি একটি গাড়ি ডেকে শিশুটিকে অন্য হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

শিশুর বাবা আল আমীন জানান, মাওনা চৌরাস্তা আলহেরা হাসপাতালে নিয়ে গেলে শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে নিয়ে যেতে বলেন। পরে ময়মনসিংহ নেওয়ার পথেই শিশুটি মারা যায়।

এ ঘটনায় শনিবার বিকেলে শিশুর বাবা বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় একটি মামলা করেছেন। অভিযুক্ত ওষুধ বিক্রেতা আলম ঘটনার পর থেকে পলাতক।

শ্রীপুর থানার এসআই আবুল হাসান বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আলমকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here