জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট মুগাবের পদত্যাগ

0
140

অবশেষে নানা নাটকীয়তার পর জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে পদত্যাগ করেছেন।

জিম্বাবুয়ের পার্লামেন্টের স্পিকার জ্যাকব মুদেন্দা মঙ্গলবার মুগাবের পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বলে আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে।

স্পিকার জ্যাকব মুদেন্দাকে দেয়া এক চিঠিতে মুগাবে বলেছেন, তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করছেন। এই ঘোষণা এমন এক সময় আসে যখন পার্লামেন্টে এমপিরা তাকে অভিশংসনের একটি প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করছিলেন। এই  পদত্যাগে দেশটিতে মুগাবের ৩৭ বছরের শাসনের অবসান হল। জিম্বাবুয়ে ১৯৮০ সালে স্বাধীন হবার পর থেকেই তিনি ক্ষমতায় ছিলেন।

মঙ্গলবার রাতে তার পদত্যাগের খবর ছড়িয়ে পড়লে রাজধানী হারারেসহ জিম্বাবুয়েজুড়ে সাধারণ মানুষ আনন্দ-উল্লাস করে বলে বলে বিবিসির এক খবরে বলা হয়।

এর আগে দলপ্রধানের পদ থেকে বহিষ্কারের পর জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্টের পদ থেকে পদত্যাগ করবেনা বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি।

রোববার প্রথমে নিজের দল জিম্বাবুয়ে আফ্রিকান ন্যাশনাল ইউনিয়ন-পেট্রিয়টিক ফ্রন্ট (জানু-পিএফ) মুগাবেকে সম্পাদকের পদ থেকে বহিষ্কার করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাষ্ট্রপ্রধানের পদ ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানায়। পদত্যাগ না করলে অভিসংশনের মতো পথে যাওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন দলের উর্ধ্বতন নেতারা।

যদিও তার কিছু পরেই রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে ৯৩ বছর বয়সী মুগাবে জানিয়ে দেন, তিনি পদত্যাগ করছেন না।

মুগাবে জাতির উদ্দেশে বলেন, ‘আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই (ডিসেম্বরে) জানু-পিএফ দলের কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। আমি তাতে সভাপতিত্ব করব।’

২০ মিনিটের এই ভাষণে মুগাবে সামরিক বাহিনীর ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি। এ ব্যাপারে তিনি শুধু বলেছেন, সেনাবাহিনী কেন এই ধরনের অভিযানে গেল, বাহিনীর প্রধান হিসেবে এর খুঁটিনাটি সবকিছুই তিনি অবগত।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার এক ‘রক্তপাতহীন অভ্যুত্থানের’ মধ্য দিয়ে ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার ঘোষণা দেয় দেশটির সেনাবাহিনী। ‘মুগাবেকে ঘিরে থাকা অপরাধীদের’ বিরুদ্ধেই এ অভিযান বলেও সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। তখন থেকেই তিনি গৃহবন্দি থাকলেও গত শুক্রবার প্রথমবারের মতো একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে আচার্য হিসেবে যোগ দেন মুগাবে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here