ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় প্রেমের ফাঁদে পড়ে কিশোরী অন্ত:সত্ত্বা

0
167

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারিরীক সম্পর্ক গড়ে তুললেও শেষে বেঁকে বসেন বখাটে প্রেমিক রবিউল ইসলাম। ১৪ বছরের এক কিশোরী তার প্রেমের ফাঁদে পড়ে এখন ৫ মাসের অন্ত:সত্ত্বা।

এদিকে নিজের দোষের কথা শিকার করলেও কৌশলে পালিয়ে গেছে রবিউল। মঙ্গলবার রাতে ওই কিশোরীকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা চিলারং ইউনিয়নের আরাজী পাহাড়ভাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা বখাটে রবিউল ইসলাম। ওই কিশোরীর মা জানান, রবিউল ইসলাম বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। গত এক বছর ধরে এ সম্পর্ক চললেও তারা  এক প্রতিবেশীর মাধ্যমে মঙ্গলবার বিষয়টি জানতে পারেন।

বিষয়টি জানার পর ইউপি সদস্য নাসিরুল চৌকিদার দিয়ে রবিউলকে ধরে নিয়ে আসে। রবিউল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করলে ওই পরিবারকে মিমাংসার প্রস্তাব দেয়। রাত গড়িয়ে বিষয়টি সুরাহা না হওয়ায় চৌকিদার সাইদুর রহমানের হেফাজতে রবিউলকে আটক রাখা হয়। রাতেই পালিয়ে যায় রবিউল।

পরে ওই শিক্ষার্থীর পরিবার ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ করলে চেয়ারম্যান আইনের আশ্রয় নেওয়া কথা বলেন। নির্যাতিতা শিক্ষার্থী জানান, রবিউল বিয়ের কথা বলে আমার সাথে সম্পর্ক গড়ে তোলে। আমি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে গেলে সে আমারে বিয়ে করতে রাজি হয় না।   উল্টো গর্ভপাতের জন্য চাপ প্রয়োগ করে। পরে নিরুপায় হয়ে আমার প্রতিবেশির মাধ্যমে আমার পরিবারকে জানাই। আমার জীবনটা এভাবে নষ্ট হোক আমি চাই না। যেন কোন মেয়ে কারো প্রলোভনে এমন ভুল না করে।

ইউপি সদস্য নাসিরুল ইসলাম জানান,  চৌকিদারের হেফাজতে রবিউলকে একটি ঘরে রাখা হয়েছিল। সে কৌশলে পালিয়ে গেছে।

কিশোরীর অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের ডা: রেউজাউল করিম। তিনি আরও বলেন, পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়েছে। রিপোর্টের পাওয়ার পর বিস্তারিত জানা যাবে।

ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার ফারহাত আহম্মেদ তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে যান। তিনি দ্রুত বখাটে রবিউল ইসলামকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবারকে। কিশোরীর নিরাপত্তার জন্য দু’জন নারী পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here