ঢাকায় আরও ফ্ল্যাট তৈরির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

0
192

উত্তরায় ফ্ল্যাট নির্মাণসহ ৮ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ১৫ হাজার ২২১ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৩ হাজার ৭৬৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকা, বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৫২৯ কোটি ২৯ লাখ টাকা এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থাগুলোর নিজস্ব তহবিল থেকে ১০ হাজার ৯২৪ কোটি ৬২ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে এ অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।

আবাস সংকট নিরসনে ঢাকার বাইরে ফ্ল্যাট নির্মাণসংক্রান্ত আরও প্রকল্প নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া অনুমোদন হওয়া উত্তরা ফ্ল্যাট নির্মাণ প্রকল্পের ৮৫০ বর্গফুটের ছোট ফ্ল্যাট তৈরির নির্দেশও দিয়েছেন তিনি।

যাতে নিম্ন আয়ের মানুষরা কম দামে এসব ফ্ল্যাট কিনতে পারেন। সেইসঙ্গে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের দেয়া প্রস্তাব ‘বর্জ্য দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রকল্প’ হাতে নেয়ার পক্ষে সায় দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এসব বিষয় নিশ্চিত করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী। এ সময় সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম, বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব মো. মফিজুল ইসলাম,পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব কেএম মোজাম্মেল হক, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য এ.এন. সামসুদ্দিন আজাদ চৌধুরীসহ অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

একনেকে অনুমোদন পাওয়া অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে- জামালপুর-কালিবাড়ী-সরিষাবাড়ী সড়ক প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণ প্রকল্প, এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ২১৯ কোটি ৬৭ লাখ টাকা।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে কঠিন বর্জ্য সংগ্রহ ও অপসারণ, ব্যয় হবে ১৯১ কোটি ১৮ লাখ টাকা।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন এলাকার অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যয় ১২০ কোটি টাকা।

মাধ্যমিক শিক্ষা উপবৃত্তি প্রকল্প, ব্যয় ১ হাজার ৩৩০ কোটি ১৫ লাখ টাকা। দেশব্যাপী গ্রামীণ বাজার অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যয় হবে ১ হাজার ৭৩০ কোটি টাকা।

বাকেরগঞ্জ-বরগুনা ১৩২ কেভি সঞ্চালন লাইন এবং বরগুনা ১৩২/৩৩ কেভি উপকেন্দ্র নির্মাণ, ব্যয় ১৪৩ কোটি ১৫ লাখ টাকা এবং বাংলাদেশ আঞ্চলিক যোগাযোগ প্রকল্প-১:ন্যাশনাল সিঙ্গেল উইন্ডে বাস্তবায়ন এবং কাস্টমস আধুনিকায়ন প্রকল্প। বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় এটি বাস্তবায়ন করা হবে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here