থানার সামনের সড়কের প্রায় ২০০ মিটার অংশ সরু হয়ে গেছে।

0
54
থানার সামনের সড়কের প্রায় ২০০ মিটার অংশ সরু হয়ে গেছে।

উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরে উত্তরা পশ্চিম থানার সামনের সড়কে দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত বেশ কিছু গাড়ি রাখা হয়েছে। এতে থানার সামনের সড়কের প্রায় ২০০ মিটার অংশ সরু হয়ে গেছে। এ কারণে চলাচলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে সেক্টরের বাসিন্দাদের।

স্থানীয় লোকজন বলেন, আগে থানা ভবনের পাশে একটি খালি প্লটে বিভিন্ন মামলার আলামত হিসেবে জব্দ করা গাড়ি রাখা হতো। জব্দ করা গাড়িসহ বিভিন্ন জিনিসপত্রে প্লটটি ভরে যাওয়ায় এখনরাস্তার ওপর গাড়ি রাখা হচ্ছে। প্রথম দিকে শুধু থানার সামনের অংশে গাড়ি রাখা হতো। আস্তে আস্তে গাড়ি থানার সামনের অংশ ছাড়িয়ে গেছে। গাড়িতে সড়ক সংকুচিত হয়ে যাওয়ায় সড়কটিতে প্রায়ই যানজট দেখা দেয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, উত্তরা পশ্চিম থানার সামনের সড়কের দুই লেনে ১০টি প্রাইভেট কার, ৩টি বাস, ৩টি পিকআপ ও ১৫টি মোটরসাইকেল রাখা হয়েছে। এ ছাড়া থানার দক্ষিণে ১৮ নম্বর সড়কের ভেতরেও কয়েকটি গাড়ি ও মোটরসাইকেল রাখা।

উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর সড়কের বাসিন্দা জামাল চৌধুরী বলেন, সড়কে এভাবে গাড়ি রাখার কারণে জনসাধারণের চলাচলে সমস্যা হয়। অথচ বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের কোনো মাথাব্যথা নেই।

গাড়িগুলো দীর্ঘদিন রাখার কারণে রাস্তারও ক্ষতি হচ্ছে বলে দাবি করেছেন সেক্টরের বাসিন্দা আবু জাফর। তিনি বলেন, কয়েক মাস আগে ২০ নম্বর সড়কের মুখে অ্যারোনটিক্যাল কলেজের পশ্চিম পাশে একটি বড় কাভার্ডভ্যান রাখা হয়েছিল। পরে সেখানে সড়কের প্রায় ৩০ ফুট অংশ নালায় ধসে পড়ে। সড়ক দেবে গাড়িটিও তখন একপাশে কাত হয়ে যায়। পরে গাড়িটি রেকার দিয়ে টেনে তোলা হয়। আবারও সেখানে গাড়ি রাখা হয়েছে।

দেখা যায়, সড়কের ওই অংশে একটি কাভার্ডভ্যান রাখা। সপ্তাহখানেক আগে গাড়িটি উত্তরায় হাউস বিল্ডিংয়ের কাছে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলেন, বিভিন্ন সময় সড়ক দুর্ঘটনার পর করা মামলার আলামত হিসেবে গাড়িগুলো জব্দ করা হয়েছে। তিনি বলেন, মামলা নিষ্পত্তি হতে অনেক সময় লাগে। অন্যদিকে জব্দ করা গাড়ির সংখ্যাও বাড়ছে। তাই রাস্তায় গাড়ি রাখতে হচ্ছে।

রাস্তায় গাড়ি রাখার বিষয়ে কথা বলতে উত্তরা পশ্চিম থানায় গিয়ে ওসি আলী হোসেন খানকে পাওয়া যায়নি। মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। খুদে বার্তা পাঠানো হলেও তিনি জবাব দেননি।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here