নতুন ফেড-প্রধান হবে কে?

0
103

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ বা ফেডের চেয়ারম্যান পদে শিগগিরই পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে। বিশ্লেষকেরা বলছেন, ফেডের প্রধান হিসেবে কাকে বেছে নেওয়া হবে, তা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সিদ্ধান্ত। নতুন ফেড-প্রধানের নাম শিগগিরই ঘোষণা করা হবে বলে ইতিমধ্যে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফেডের প্রধান হওয়ার প্রতিযোগিতায় বর্তমান চেয়ারম্যান জ্যানেট ইয়েলেনসহ পাঁচজনের নাম রয়েছে। সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা অন্যরা হলেন জেরোম পাওয়েল, জন টেইলর, কেভিন ওয়ারশ, গ্যারি কন।

জেরোম পাওয়েলফেডের প্রধান হওয়ার দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে আছেন জেরোম পাওয়েল। কারণ, এ অর্থনীতিবিদকে বেশ পছন্দ করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। গত সোমবার ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, ফেড-প্রধান হওয়ার তিনজনের সংক্ষিপ্ত তালিকায় তিনি আছেন। ২০১২ সাল থেকে ফেডারেল রিজার্ভের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন পাওয়েল। তাঁর সম্ভাবনার বিষয়ে মার্কিন অর্থনীতিবিদ ওমাইর শরীফ বলেন, তিনি রিপাবলিকান চেতনায় বিশ্বাসী, সুদ হার কম রাখতে চান এবং আর্থিক খাতের ওপর অতিরিক্ত নিয়ন্ত্রণ আরোপের বিরোধী।

বর্তমান প্রধান জ্যানেট ইয়েলেনের সম্ভাবনা সম্পর্কে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রথম নারী প্রধান হিসেবে ২০১৪ সালে নিয়োগ পান তিনি। আর্থিক খাতকে নিয়ন্ত্রণ না করে বেশি স্বাধীনতা দেওয়া নীতির বিরোধী জ্যানেট ইয়েলেন। রক্ষণশীল ধারার অর্থনীতিবিদ হিসেবে তাই জ্যানেট ইয়েলেনের এই পদে থেকে যাওয়ার সম্ভাবনা খুব বেশি নেই।

জন টেইলরপ্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সংক্ষিপ্ত তালিকায় বেশ ভালোভাবে আছেন স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতির অধ্যাপক জন টেইলর। রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ও পদপ্রার্থীদের অর্থনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা আছে তাঁর। তবে জন টেইলরের নেতিবাচক দিক হলো, সুদ হার দ্রুত বাড়ানো ও উচ্চ সুদ হারের পক্ষপাতী তিনি। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মনে করেন, সুদ হার বেড়ে গেলে তা ভোক্তা ব্যয়ের ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

কেভিন ওয়ারশফেড-প্রধান হওয়ার তালিকায় আরও আছে কেভিন ওয়ারশ’র নাম। ২০০৬ সালে ফেডের সবচেয়ে কম বয়সী গভর্নর নির্বাচিত হন তিনি। তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ৩৫। ২০০৭ সালে আর্থিক মন্দার সময় যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজার ওয়াল স্ট্রিটে কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে তাঁর। মরগান স্ট্যানলিতে ব্যাংকার হিসেবেও তিনি অনেক দিন কাজ করেছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গেও তাঁর সম্পর্ক খুব ভালো। তবে শিক্ষাগত যোগ্যতায় অন্য প্রার্থীদের তুলনায় কিছুটা পিছিয়ে আছেন তিনি।

গ্যারি কনফেডের প্রধান হওয়ার তালিকায় আছেন গ্যারি কন। বর্তমানে তিনি ট্রাম্পের জাতীয় অর্থনৈতিক কাউন্সিলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে গোল্ডম্যান স্যাকসেও দীর্ঘদিন কাজ করেছেন তিনি।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here