প্রতি বছর এক লাখ ২০ হাজার মানুষ অন্ধত্ব বরণ করছে

0
137

দেশে প্রতি বছর এক লাখ ২০ হাজার মানুষ নতুন করে অন্ধত্ব বরণ করছে। যাদের ৮০ শতাংশই গ্রামে বাস করে। দেশে আনুমানিক সাত লাখ ৫০ হাজার লোক অন্ধ। তাদের মধ্যে ছয় লাখ ৫০ হাজার জন ছানিজনিত কারণে অন্ধত্ব বরণ করেছেন। প্রায় ১৩ লাখ শিশুর দৃষ্টি ত্রুটি রয়েছে এবং ৫১ হাজার ২০০ শিশু অন্ধ। এদের মধ্যে ২০ হাজার ৪৮০ জন শিশুর অন্ধত্ব প্রতিরোধযোগ্য। অন্ধত্ব দেশের জাতীয় অর্থনীতির ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

সিরডাপ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। সকালে ‘অরবিস’ এর উড়ন্ত চক্ষু হাসপাতালের আগমন উপলক্ষে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক মহা পরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হক, স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. এএইচএম এনায়েত হোসেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শরফুদ্দীন আহমেদ, চক্ষু বিশেষজ্ঞ ও এশিয়া প্যাসিফিক একাডেমি অব অপথালমোলজির ভাইস প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. আভা হোসেন, অরবিস ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. মুনীর আহমেদ বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি তৌফিক মারুফ প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দেশে অন্ধত্ব নিরসনে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও প্রশিক্ষণ দিতে দশমবারের মতো বাংলাদেশে এবং চতুর্থবারের মতো চট্টগ্রামে আসছে আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থা ‘অরবিস’ এর উড়ন্ত চক্ষু হাসপাতাল। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আমন্ত্রণে চলতি বছরের ১৬ নভেম্বর এই হাসপাতালটি দেশে আসছে। ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবস্থান করে বিনামূল্যে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে চিকিৎসা ও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

বিশ্বের একমাত্র এই উড়ন্ত চক্ষু হাসপাতালের আত্মপ্রকাশের তিন বছরের মধ্যে ১৯৮৫ সালে প্রথম বাংলাদেশে এসে চিকিৎসা ও সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করে। সর্বশেষ এটি ২০০৯ সালে বাংলাদেশে এসেছিল। এবারের প্রশিক্ষণে চক্ষু রোগের ৮টি সাব-স্পেশালিটিতে সর্বমোট ৩১৫ জন চক্ষু বিশেষজ্ঞ ও চক্ষু সেবায় নিয়োজিত নার্স ও বায়োমেডিকেল টেকনিশিয়ান অংশ নেবেন। ২৪ জন চক্ষু চিকিৎসককে দক্ষতা বৃদ্ধি ও উন্নত প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। যারা পরবর্তীতে বাংলাদেশে অন্যান্য পেশাজীবীদের প্রশিক্ষণ ও উন্নত চিকিৎসাসেবা দেবেন। নির্বাচিত ২০০ জন রোগীর চক্ষু পরীক্ষা এবং ১২০ জন রোগীর চোখের অস্ত্রোপচার করার মাধ্যমে শিক্ষা দেয়া হবে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here