ফতুল্লায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

0
53
ফতুল্লায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পারভেজ (২৪) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে দাপা ইদ্রাকপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে দুটি গুলিভর্তি রিভলবার ও তিনটি ছোরা জব্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ দাবি করেছে, নিহত পারভেজ ছিনতাইকারী ও মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। পুলিশের একটি অস্ত্র খোয়া যাওয়া ও পরে উদ্ধারের ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় করা মামলার প্রধান আসামি ছিলেন পারভেজ।

নিহত পারভেজ দাপা ইদ্রাকপুর এলাকার সোবহান মিয়ার ছেলে।

ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর কাদের জানান, রাত দেড়টার দিকে আলামিননগর এলাকায় ছিনতাইকারীদের দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির খবর পায় পুলিশ। পরে পুলিশের একটি দল সেখানে গেলে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে ছিনতাইকারীরা। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। ঘটনাস্থলে পারভেজকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পেয়ে পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে (ভিক্টোরিয়া) নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পারভেজ মাদক ব্যবসায়ী ও ছিনতাইকারী ছিলেন বলে ওসি দাবি করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ১৩ মে রাতে সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সুমন কুমার পালের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ফতুল্লা রেলস্টেশন রোড এলাকার বালুর মাঠে দায়িত্ব পালন করার সময় কনস্টেবল সোহেল রানার সঙ্গে থাকা একটি চায়নিজ রাইফেল খোয়া যায়। পরদিন ১৪ মে দাপা বালুর মাঠের পাশের একটি ডোবার পাশ থেকে চায়নিজ রাইফেলটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানার এএসআই সুমন কুমার পাল, তিনজন কনস্টেবল মাসুদ রানা, আরিফ ও সোহেল রানাকে দায়িত্বে অবহেলার জন্য সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। ওই ঘটনায় পরে সুমন কুমার পাল বাদী হয়ে পারভেজসহ তিনজনকে আসামি করে ওই রাতেই ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেন। এতে অভিযোগ করা হয়, পারভেজ ওই অস্ত্র লুট করেছিলেন।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here