বাংলাদেশে ফ্রান্স থেকে ব্যান্ডউইথ আসছে

0
270

মেরামতকাজের জন্য দেশের প্রথম সাবমেরিন কেব্‌ল আজ মঙ্গলবার থেকে আগামী তিন দিন বন্ধ থাকবে। ফলে দেশে ২৩০ জিবিপিএস (গিগা বিট প্রতি সেকেন্ড) ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথের যে ঘাটতি সৃষ্টি হবে, তা মেটাতে ফ্রান্স থেকে ৪০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ কিনছে বাংলাদেশ সাবমেরিন কেব্‌ল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল)। আপাতত এক মাসের জন্য এ ব্যান্ডউইথ নেওয়া হবে। এ জন্য খরচ হবে ২০ হাজার মার্কিন ডলার বা ১৬ লাখ টাকা।

তবে ফ্রান্স থেকে ব্যান্ডউইথ আমদানির করার পরও আগামী তিন দিন দেশে কমপক্ষে ৮০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথের ঘাটতি থাকবে। কারণ, গত সেপ্টেম্বরে চালু হওয়া দ্বিতীয় সাবমেরিন কেব্‌ল (এসইএ-এমই-ডব্লিউই-৫) থেকে বর্তমানে পাওয়া যাচ্ছে ১১০ জিবিপিএসের কিছু বেশি ব্যান্ডউইথ। যদিও উদ্বোধনের সময় দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলের ব্যান্ডউইথ পরিবহন-সক্ষমতা ২০০ জিবিপিএস বলা হয়েছিল।

জানতে চাইলে বিএসসিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মশিউর রহমান বলেন, মেরামতকাজের জন্য প্রথম সাবমেরিন কেব্‌ল আগামী তিন দিন বন্ধ থাকবে। দ্বিতীয় সাবমেরিন কেব্‌ল ও ফ্রান্স থেকে ব্যান্ডউইথ আমদানি করে আগামী তিন দিনের চাহিদা পূরণ করা হবে। ফলে নিরবচ্ছিন্ন ইন্টারনেট প্রাপ্তিতে খুব একটা সমস্যা হবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের কোজেন্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ফ্রান্স থেকে ব্যান্ডউইথ আমদানি করবে বিএসসিসিএল। এতে প্রতি এমবিপিএস (মেগা বিট প্রতি সেকেন্ড) ব্যান্ডউইথ আমদানিতে খরচ হবে শূন্য দশমিক ৫ ডলার বা ৪০ টাকা। আমদানি করা এই ব্যান্ডউইথের দাম দেশীয় উৎসের ব্যান্ডউইথের তুলনায় এমবিপিএস প্রতি ১১ টাকা বেশি। বর্তমানে সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে যে ব্যান্ডউইথ বিএসসিসিএল কেনে, সেটার গড়ে দাম পড়ে ২৮ টাকা ৮০ পয়সা। বিএসসিসিএলের এমডি জানান, খুব অল্প সময়ের জন্য এই ব্যান্ডউইথ কেনা হচ্ছে বলে দাম একটু বেশি পড়বে।

বিএসসিসিএলের হিসাব অনুযায়ী বর্তমানে দেশে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথের দৈনিক চাহিদা ৪৭০ জিবিপিএস (গিগা বিট প্রতি সেকেন্ড)। এর মধ্যে দুটি সাবমেরিন কেবলের কেব্‌ল থেকে ২৭০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ পাওয়া যায়। বাকি ২০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ ভারত থেকে আইটিসি (ইন্টারন্যাশনাল টেরিস্ট্রিয়াল কেব্‌ল) কোম্পানির মাধ্যমে আমদানি করা হয়।

বাংলাদেশ ২০০৫ সালে প্রথম সাবমেরিন কেবলের (সাউথইস্ট এশিয়া-মিডিল ইস্ট-ওয়েস্টার্ন ইউরোপ-৪) সঙ্গে সংযুক্ত হয়। ২০০৫ সালে চালুর পর প্রথমবারের মতো এ সাবমেরিন কেব্‌ল সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিয়ে এর মেরামত করা হবে। বিএসসিসিএল এখন পর্যন্ত দুইবার প্রথম সাবমেরিন কেবলের মেরামতকাজের তারিখ পিছিয়েছে।

ইন্টারনেটের গতি ধীর থাকবে

ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো (আইএসপি) বলেছে, ব্যান্ডউইথ ঘাটতির কারণে ইন্টারনেটের গতি আগামী তিন দিন কম থাকবে। এতে সাধারণ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের সমস্যায় পড়তে হবে। বিশেষ করে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, যাদের কর্মকাণ্ড উচ্চগতির ইন্টারনেটের ওপর নির্ভরশীল, তাদের বেশি সমস্যায় পড়তে হবে।

অনলাইন কাজের মার্কেটপ্লেস বিল্যান্সারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শফিউল আলম বলেন, কাজের ক্ষেত্রে ইন্টারনেট এখন অনেকটা অক্সিজেনের মতো। এর গতি যদি কোনোভাবে বাধাগ্রস্ত হয়, তাহলে সারা দিনের কার্যক্রম অনেকটা স্থবির হয়ে পড়ে। কারণ, বিদেশি গ্রাহকের সঙ্গে যোগাযোগ থেকে শুরু করে যেসব কাজ এখন করা হয়, তা অনলাইন ক্লাউডভিত্তিক।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here