বিদেশী অপরাধী চক্রের বিরুদ্ধে অভিযানে নামছে পুলিশ

0
126

খুব শীঘ্রই বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশী নাগরিক যারা নানা ধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করবে পুলিশ। বাংলাদেশে বৈধ-অবৈধভাবে বসবাস করছেন এমন বিদেশীর সংখ্যা দুই লাখের বেশি। এর মধ্যে সহস্রাধিক বিদেশী নানা ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ দেশে অবস্থানরত ১০ দেশের প্রায় ১ হাজার অবৈধ বিদেশী নাগরিকের বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপরাধের গুরুতর অভিযোগ পাওয়ার পর নজরদারি শুরু করেছে গোয়েন্দা সংস্থা। অপরাধের সঙ্গে যুক্ত ও অবৈধভাবে বসবাসকারী বিদেশীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করবে র‌্যাব, পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানান, রাজধানীতেই পাঁচ শতাধিক অবৈধভাবে অবস্থানকারী বিদেশী নাগরিক রয়েছে যারা বাংলাদেশে থেকে প্রতারণা, ক্রেডিটকার্ড জালিয়াতি, জঙ্গী তৎপরতা, আদম পাচার, জাল ডলার ব্যবসা, মাদক পাচারের মতো অপরাধে জড়িত হয়ে পড়েছে বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে তথ্য রয়েছে। বিদেশী এসব অপরাধীরা ইন্টারনেটে, ফেসবুক, ই-মেইল, হোয়াটএ্যাপ, ম্যাসেঞ্জারসহ নানা ধরনের পদ্ধতিতে প্রতারণার ফাঁদ পেতে থাকে।

এসব বিদেশী নাগরিককে সহায়তা করছে অপরাধের সঙ্গে জড়িত এমন বাংলাদেশের নাগরিকরা। গত বৃহস্পতিবার তিন আফ্রিকান নাগরিককে আড়াই লাখ ইউরো বাংলাদেশী মুদ্রায় আড়াই কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‌্যাব। র‌্যাব, পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানান, দুই বিদেশী হত্যাকা-ের ঘটনা এবং বেশ কিছু বিদেশী প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতারের পর বিদেশী নাগরিকের ডাটাবেজ তৈরির কাজ করেন পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি)। স্পেশাল ব্রাঞ্চের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের মে মাস থেকে জুলাই পর্যন্ত তিন মাসে প্রায় ১ হাজার বিদেশীর ওপর অনুসন্ধান ও নজরদারি করেন তারা।

এতে দেখা গেছে ১৫৮ জন অবৈধভাবে অবস্থান করছে। তাদের মধ্য থেকে মাত্র ১ জনকে বিদেশে ফেরত পাঠানো গেছে। এর মধ্যে ৯৯ বিদেশীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই সময়ে এদের মধ্যে ২৯ বিদেশী জরিমানা দিয়ে দেশ ছেড়ে চলে গেছে। স্পেশাল ব্রাঞ্চের ডাটাবেজ অনুযায়ী, দেশে প্রায় দুই লাখ বিদেশী অবস্থান করছে। তাদের মধ্যে প্রায় ১৭ হাজার আফ্রিকানসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক রয়েছে যারা দেশের জন্য বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। এদের মধ্যে সহস্রাধিক বিদেশী নাগরিককে নানা ধরনের অপরাধমূলক কর্মকা-ে জড়িয়ে পড়ার তথ্য ও তালিকা পেয়েছেন তদন্তকারীরা। কিন্তু তাদের ওপর যথাযথ নজরদারি নেই। অবৈধ বিদেশীরা কোথায়, কী ধরনের কাজ করছে, অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে কি না সেই বিষয়ে নিয়মিত নজরদারি বা আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণপূর্বক পদক্ষেপ নেয়ার উদ্যোগ নেই।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশে যেসব বিদেশী বসবাস বা অবস্থান করছেন তাদের মধ্যে কালো আফ্রিকান নাগরিক যারা তাদেরই বেশিরভাগ নানা ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আফ্রিকা অঞ্চলের কিছু মানুষ তাদের পাসপোর্ট ফেলে দিচ্ছে। এরপর তাদের অবস্থানে সহযোগিতা করছে স্থানীয় কিছু অর্থলোভী নারী-পুরুষ। শুধু তাই নয়, অপরাধেও মদদ জোগানো হচ্ছে। ধরা যদি কেউ পড়েও জামিনে বেরিয়ে ফের অপরাধে জড়াচ্ছে। বাংলাদেশে অবস্থানকারী বিদেশী অপরাধীদের শনাক্ত করার পর তালিকা তৈরি করে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে কী করণীয় তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর সঙ্গে কাজ শুরু করার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে গোয়েন্দা কর্মকর্তার দাবি।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here