বিপিএল থেকে ভাল পারফর্মারের খোঁজে নান্নু

0
97

বাংলাদেশের একমাত্র টি২০ ফরমেটের আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল)। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এ আসরে দারুণ সুযোগ কিছু তরুণ উদীয়মান ক্রিকেটার খুঁজে পাওয়া। তবে এবার প্রতি দলে ৫ বিদেশী খেলানো নিয়ে এই চিন্তাধারায় কিছুটা ব্যাঘাত ঘটেছে বলেই অনেক দেশী ক্রিকেটার মনে করছেন। কারণ গুরুত্বপূর্ণ পজিশনগুলোতে প্রতিম্যাচে খেলছেন বিদেশীরা। ফলে স্থানীয় ক্রিকেটারদের জন্য মেলে ধরার সুযোগটা অনেকখানি কমে গেছে। তবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু এরপরও ভাল মানের পারফর্মার খুঁজে বের করার ব্যাপারে মনোযোগী। তিনি মনে করেন ২/৩ জন পারফর্মার খুঁজে পেলেও দেশের ক্রিকেটের জন্য অনেক ভাল অর্জন হবে।

এখন পর্যন্ত চলতি বিপিএলের ব্যাটে-বলে বিদেশী ক্রিকেটাররাই পারফর্মেন্সে অনেকখানি এগিয়ে। দেশের ক্রিকেটাররা তেমন এগিয়ে আসতে পারেননি এবং খুব বড় কোন নৈপুণ্য দেখাতে পারেননি। এর পেছনে অনেক ক্রিকেটারই মনে করছেন ম্যাচের একাদশে গুরুত্বপূর্ণ পজিশনগুলোই বিদেশীরা দখল করে থাকাতেই সুযোগ কমে গেছে দেশী ক্রিকেটারদের আর ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোও গুরুত্ব বেশিই দিচ্ছে বিদেশী ক্রিকেটারদের। এ বিষয়ে নান্নু বলেন, ‘আপনি দেখবেন সব দলের ফ্রন্টলাইনে বিদেশী খেলোয়াড়রা আধিপত্য করছে। এই জিনিসটা কম তো যদি আরেকটা দল থাকত। দল কম থাকায় চাপটা চলে আসছে। কিন্তু সুযোগ পেলে ভাল খেলাটা গুরুত্বপূর্ণ। যেহেতু সব দলেরই ফ্রন্টলাইনে বিদেশীরা খেলছে, সেহেতু দেশী খেলোয়াড়দের জন্য পারফর্ম করা কষ্টকর। তাদের খুব পরিশ্রম করতে হচ্ছে।’ কিন্তু এক্ষুনি আশাহত হচ্ছেন না নান্নু। সবেমাত্র বিপিএলের কয়েকটা ম্যাচ গেছে। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ভাল দেশী পারফর্মারদের দেখা যাবে বলেই আশাবাদী তিনি। নান্নু বলেন, ‘আমার মনে হয়, আমরা যদি এই টুর্নামেন্ট থেকে দুই/তিন জন ভাল পারফর্মার পাই, সেটা আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া হবে। একেকটা দল ১২টা করে ম্যাচ পাবে। এখন পর্যন্ত তিনটা করে খেলা গেছে। আমার মনে হয় যে, অন্তত ৭০ ভাগ ম্যাচ শেষ না হলে পারফর্ম মূল্যায়ন করতে পারবেন না।’

টি২০ ক্রিকেটে ভাল পারফর্মেন্স করার সুযোগটা কমই থাকে। ব্যাটিংয়ে যারা আগে নামার সুযোগ পান তাদের জন্য কিছুটা সুবিধাজনক নিজেকে মেলে ধরা। বোলিংয়েও দুয়েকটি ওভারই বদলে দেয় পরিসংখ্যান। এ জন্য নান্নু মনে করেন, প্রতিটি ক্রিকেটারেরই খেলায় মনোসংযোগটা আরও ভাল হওয়া উচিত। তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘টি২০-তে একজন খেলোয়াড় খুব কম সুযোগ পায়। সুতরাং একটা/দুইটা ম্যাচ দেখে বিচার করা যাবে না। এত ক্ষুদ্রতর সংস্করণ, এখানে সবকিছু অনেক কঠিন। আমার মনে হয় খেলোয়াড়দের আরও মনোযোগ বাড়ানো উচিত, আরও পারফর্ম করা।’ ইতোমধ্যেই অবশ্য বেশ কয়েকজন ভাল ইনিংস খেলেছেন এবং বল হাতেও দারুণ কিছু নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। এটাকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন নান্নু। তিনি বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য ভালকিছুর নমুনা। পুরো টুর্নামেন্ট থেকে দুই/তিনটা ভাল পারফর্ম পাওয়া গেলে দেশের জন্য খুব ভাল কিছু হবে। আরও ম্যাচ গেলে ব্যাপারটা বোঝা যাবে।’ সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে জাতীয় দল একেবারেই বাজে নৈপুণ্য দেখিয়ে ফিরেছে। ব্যক্তিগত ও দলগত নৈপুণ্যেও তেমন সুবিধা করতে পারেনি। এ কারণেই এখন নতুন কিছু পারফর্মার বিপিএল থেকে খুঁজে বের করার দিকে দৃষ্টি নান্নুর। কারণ দলটা নির্বাচন করতে হবে তাকেই শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সিরিজের জন্য। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে দেশের ইতিহাসে সফলতম কোচ চান্দিকা হাতুরাসিংহের পদত্যাগ। এ বিষয়ে নান্নু বলেন, ‘কোচের বিষয়টা পুরোপুরি বোর্ডের ওপর। সময় হলে সঠিক ব্যাপারটা জানা যাবে। আমার মনে হয় এখন এ বিষয়ে আমার মন্তব্য করা ঠিক হবে না। ওর সময়ে আমাদের ভাল দিন গেছে। সুতরাং তাকে তো অবশ্যই মিস করব।’

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here