বয়স বাড়লেও সাল্লুর ‘অবিবাহিত অধ্যায়ের’ সময় যেন কাটছেই না সালমান খান

0
202
বয়স বাড়লেও সাল্লুর ‘অবিবাহিত অধ্যায়ের’ সময় যেন কাটছেই না সালমান খান

সালমান খান ও রানি মুখার্জি জুটি বেঁধে দর্শকদের অসংখ্য হিট ছবি উপহার দিয়েছেন। বাস্তবেও এই দুজনের মধ্যে দারুণ বন্ধুত্ব। দুই বন্ধুর মধ্যে রানি এরই মধ্যে নির্মাতা আদিত্য চোপড়াকে বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন। ঘরে এসেছে এক মেয়ে। তবে বন্ধু সালমান এখনো থিতু হতে পারেননি। প্রেম করে চলেছেন। নিকট ভবিষ্যতে বিয়ে করবেন এমন কোনো সম্ভাবনাও নেই। সম্প্রতি সালমানের সঞ্চালনায় রিয়্যালিটি শো ‘বিগ বস’ এর মঞ্চে হাজির হয়ে সালমানকে ‘দারুণ’ এক পরামর্শ দিয়ে গেছেন এই অভিনেত্রী।

গত মাসে সালমান খান তাঁর ৫২তম জন্মবার্ষিকীর কেক কেটেছেন। বয়স বাড়লেও সাল্লুর ‘অবিবাহিত অধ্যায়ের’ সময় যেন কাটছেই না। কিন্তু মা-বাবাকে নাতি নাতনির মুখ দেখানোর জন্য তাঁর নাকি বাবা হতেও ইচ্ছা করে। এখন কী উপায়? রানি তাই সাল্লুকে বিয়ে না করেই বাবা হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। মজা করে রানি বলেন, বিয়ে হচ্ছে সালমানের জীবনের হেঁচকি বা প্রতিবন্ধকতা। তাই এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে না গিয়ে তাঁকে সরাসরি বাবা হওয়ার বুদ্ধি দিয়েছেন রানি।

নিজের আসন্ন ছবি ‘হেঁচকি’-র প্রচারণা চালাতেই এই সেটে হাজির হয়েছিল রানি।

এই ‘মারদানি’ নায়িকা বলেন, ‘আমি চাই সালমান খুব জলদি বাবা হোক। তাহলে আমার মেয়ে আদিরা সালমানের সন্তানের সঙ্গে খেলতে পারবে। আমি প্রার্থনা করি সালমানের সন্তান যেন দেখতে সালমানের মতোই হয়।’ এই কথা বলেই হাসিতে ফেটে পড়েন রানি।

‘বিস বস’এর মঞ্চে রানি মুখার্জি ও সালমান খান‘বিস বস’এর মঞ্চে রানি মুখার্জি ও সালমান খানসালমান তাঁর বন্ধু রানির দুষ্টুমি বুঝতে পেরে বলেন, ‘যদি সন্তান তাঁর মায়ের মতো দেখতে হয় তখন কী হবে?’ এই কথা বলার পর সালমান আর রানি দুজনেই হাসতে থাকেন। শুটিং সেটে থাকা একজন প্রত্যক্ষদর্শী ভারতীয় অনলাইন পোর্টাল বলিউড বাবলকে জানান, ‘বিস বস’ এর ১১তম মৌসুমের শুটিংয়ে সেদিনের মতো মজা আর কোনো দিন হয়নি। রানি আর সালমান মিলে হাসি ঠাট্টা করে সেটের সবাইকে মাতিয়ে রেখেছিলেন।

এদিকে, সালমান এখন তাঁর ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’ ছবির সাফল্য উপভোগ করছেন। এটি রানির স্বামী আদিত্য চোপড়ার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান যশ রাজ ফিল্মসের ছবি। আর রানি মুখার্জি অভিনীত ‘হেঁচকি’ মুক্তি পাবে আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি। এখানে রানিকে একজন স্কুল শিক্ষিকার চরিত্রে দেখা যাবে, যিনি টরেট সিনড্রোমে ভুগছেন। অভিজাত একটি স্কুলে নিম্ন আয়ের পরিবার থেকে আসা ছাত্রদের পড়ানোর দায়িত্ব কাঁধে আসে তাঁর। হেঁচকি রোগ থাকা সত্ত্বেও রানি কীভাবে সেই ছাত্রদের শিক্ষকতা করেন তা নিয়েই সিনেমার গল্প। সূত্র: বলিউড বাবল।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here