ম্যানহাটন হামলাকারীর মৃত্যুদণ্ড চান ট্রাম্প

0
59

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, হামলাকারী সাইফুল্লোর মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিৎ। যদিও নিউ ইয়র্কের আইনে মৃত্যুদণ্ডের কোন সুযোগ নেই। শুধু তাই নয়, সন্দেহভাজন হামলাকারীকে কিউবার কুখ্যাত গুয়ানতানামো বে কারাগারে পাঠানো উচিৎ বলেও মত দিয়েছেন তিনি। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন প্রকল্প ডিভি লটারি বন্ধ করতে ব্যবস্থা নেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

এদিকে, ম্যানহাটনে সাইকেলের জন্য নির্ধারিত লেনে ট্রাক তুলে দিয়ে আটজনকে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত সাইফুল্লো সাইপভ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে বলেছেন, হ্যালোউইন উৎসবেই হামলা করতে চেয়েছিলেন তিনি। সন্ত্রাসী হামলার পর পুলিশের গুলিতে আহত হন সাইফুল্লোকে হুইল চেয়ারে করে আদালতে নিয়ে আসা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থাতেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল আদালতে ২৯ বছর বয়সী এই উজবেক অভিবাসীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দায়ের করা হয়। তদন্ত কর্মকর্তারা তার বিরুদ্ধে জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস’কে বিভিন্ন উপাদান ও সম্পদ দিয়ে সহায়তা করারও অভিযোগ এনেছেন।

জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুল্লো জানান, দুই মাস আগেই হ্যালোউইন উৎসবে হামলার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেন তিনি। হামলার সময় ট্রাকে আইএসের পতাকা উড়ানোরও পরিকল্পনা ছিলো তার। ইরাক যুদ্ধের প্রতিশোধ নিতে আইএস প্রধান আবু-বকর আল বাগদাদির আহŸানে সাড়া দিয়ে নিউ ইয়র্কে হামলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সাইফুল্লো।

তদন্ত কর্মকর্তারা জানান, জিজ্ঞাসাবাদে খোলামেলা ভাবেই সব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন সাইফুল্লো। এছাড়া সাইফুল্লোর ফোনে আইএসের প্রচারণা মূলক প্রায় ৯০টি ভিডিও কন্টেন্ট পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ডিভি লটারির মাধ্যমে উজবেকিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন সাইফুল্লো। নিউ জার্সির পিটারসনে থাকার আগে তিনি ফ্লোরিডার টাম্পায়ও দীর্ঘসময় বসবাস করেছেন। ট্যাক্সি সার্ভিস অ্যাপ উবার জানিয়েছে, সাইফুল্লো তাদের নিবন্ধিত চালক ছিলেন।

হামলায় প্রতিক্রিয়ায়, মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় উজবেকিস্তানকে যুক্ত করা হবে কি না তা নিয়েও চিন্তাভাবনা চলছে।

মঙ্গলবারের হামলায় নিহত ৮ জনের মধ্যে পাঁচজন ছিলেন আর্জেন্টিনার নাগরিক, একজন বেলজিয়ামের; বাকি দুই মার্কিন নাগরিকের পরিচয় জানা যায়নি। আহত ১২ জনের মধ্যে ৯ জন এখনো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বিবিসি, রয়টার্স

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here