যশোরে সিংহ ও চিতার চারটি শাবক উদ্ধার

0
88

যশোর থেকে উদ্ধার হওয়া সিংহ ও চিতার চারটি শাবক দীর্ঘ যাত্রার ধকলে এখন বেশ দুর্বল। দুর্বলতা কাটাতে গাজীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের প্রাণী হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইন সেলে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। চিতার শাবকগুলোকে ফিডারে করে দুধ এবং সিংহের শাবকদের মাংস খেতে দেওয়া হচ্ছে। সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত চিতা-সিংহের শাবকদের এখানে রাখা হবে।

গতকাল সোমবার দুপুরে যশোরের চাঁচড়া এলাকায় একটি প্রাডো গাড়ি থেকে চিতা ও সিংহের চারটি শাবকসহ কামরুজ্জামান ওরফে বাবু (৩০) ও রানা মিয়া (২৮) নামের দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। রাজধানীর উত্তরা এলাকা থেকে শাবক চারটি নেওয়া হয়। গাড়ির ভেতর দুটি কাঠের বাক্সে করে চালানটি সীমান্তবর্তী শার্শা উপজেলার এক ব্যক্তির বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার কথা ছিল বলে জানান যশোরের পুলিশ সুপার (এসপি) আনিসুর রহমান।

যে গাড়ি থেকে বাঘ-সিংহের শাবকগুলো উদ্ধার করা হয়েছে সেটির মালিক ঢাকার বনানী এলাকার মেসার্স স্টার গোল্ড ইন্টারন্যাশনালের মো. খাজা মঈনুদ্দিন। প্রতিষ্ঠানটি বনানীর কাকলী এলাকার নিউ এয়ারপোর্ট সড়কের ৯২/২ নম্বর বাড়ির হাজি টাওয়ারের পঞ্চম তলায় অবস্থিত। গাড়ির কাগজপত্রে দুটি মুঠোফোন নম্বর দেওয়া রয়েছে। ওই নম্বর দুটির একটিতে ফোন দিলে একজন নারী বলেন, ‘প্রাডো মডেলের আমাদের কোনো গাড়ি নেই। আপনার নম্বর তুলতে হয়তো ভুল হয়েছে।’ দ্বিতীয় নম্বরটিতে ফোন দিলে একজন পুরুষ ফোন ধরে একই কথা বলেন।

যশোরে চিতা ও সিংহের শাবকদের বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়। সেখান থেকে আজ ভোর সোয়া চারটার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে আনা হয়। নতুন সিংহ শাবকসহ সাফারি পার্কে সিংহের সংখ্যা এখন ২১–এ দাঁড়াল। তবে এখানে কোনো চিতাবাঘ নেই।

পার্কে আনার পর চারটি শাবকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়। এ কথা জানিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের সহকারী ভেটেরিনারি সার্জন নিজাম উদ্দিন চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, দুটি চিতার শাবকই ছেলে। একটির ওজন দুই কেজি, আরেকটি চিতা শাবকের ওজন এক কেজি ৬০০ গ্রাম। ওদের আনুমানিক বয়স দেড় মাস। সিংহের শাবক দুটির একটি ছেলে ও একটি মেয়ে। প্রতিটি সিংহ শাবকের ওজন ছয় কেজি করে। ধারণা করা হচ্ছে, এদের আনুমানিক বয়স আড়াই মাসের মতো। এগুলোকে মাংস ছোট ছোট টুকরো করে খেতে দেওয়া হচ্ছে।

শারীরিক দুর্বলতার কারণে চিতা ও সিংহের শাবকগুলোর স্বাস্থ্য পরীক্ষা চলছে জানিয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, বেশ টানা হেঁচড়া করা হয়েছে। ঢাকা থেকে যশোর হয়ে আবার গাজীপুরে আনা-নেওয়া করানোর কারণে শাবকগুলো বেশ দুর্বল ও অসুস্থ। এ জন্য শারীরিক অবস্থা বুঝে খাবার দেওয়া হচ্ছে। তিন ঘণ্টা পর পর ওদের শরীরের তাপমাত্রা, হৃৎপিণ্ডের স্পন্দনসহ বিভিন্ন পরীক্ষা করানো হচ্ছে। আপাতত ওদের হাসপাতালেই রাখা হবে। সুস্থ হলেও এক বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত দর্শনার্থীদের সামনে নেওয়া হবে না।

সাফারি পার্কের এক বন কর্মকর্তা জানান, চিতা-সিংহদের পার্শ্ববর্তী কোনো দেশ থেকে আনা হয়েছে। এই প্রজাতির চিতা ও সিংহ বাংলাদেশের কোথাও পাওয়া যায় না। সিংহ ও চিতা শাবকগুলো একই মায়ের সন্তান নয় বলেই ধারণা করা হচ্ছে। বাংলাদেশের বাজার মূল্য অনুযায়ী চারটি শাবকের মূল্য ৪০ লাখ টাকার মতো হতে পারে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here