রাবি অপহৃত ছাত্রীকে ঢাকা থেকে উদ্ধার

0
68

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) তাপসী রাবেয়া হলের সামনে থেকে অপহৃত বাংলা বিভাগের ছাত্রীকে ঢাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারের পর তাকে ঢাকা থেকে রাজশাহী নেওয়া হচ্ছে।

শনিবার বেলা ৩টার দিকে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখার আলম সমকালকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে শনিবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গন্থাগারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে ওই ছাত্রীকে উদ্ধাররের জন্য এ আলটিমেটাম দেন শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি সাত দফা দাবিও পেশ করেন তারা। শনিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করা না হলে নতুন কর্মসূচি ঘোষণার করার কথা জানিয়েছিলেন তারা।

উল্লেখ্য, শুক্রবার সকালে রাবির তাপসী রাবেয়া হলের সামনে থেকে বাংলা বিভাগের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা দিতে যাওয়ার সময় এক ছাত্রীকে তার সাবেক স্বামী অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ উঠেছে। তার সন্ধান দাবিতে শুক্রবারই আন্দোলনে নামের তাপসী রাবেয়া হলের শিক্ষার্থীরা। ওই ছাত্রীকে উদ্ধারের দাবিতে বিকাল ৪টা থেকে উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও করেন রাবি শিক্ষার্থীরা। সন্ধ্যা ৭টার দিকে রাতের জন্য এ কর্মসূচি স্থগিত করেন তারা। একইসঙ্গে শনিবার সকাল ১০টায় মানববন্ধন ও ফের উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাওয়ের ঘোষণা দেন।

অপহৃত ছাত্রীর পরিবার জানায়, অভিযুক্ত সোহেল রানা নওগাঁর পত্নিতলার নজিপুর গ্রামের আইনজীবী জয়নাল আবেদীন মন্টুর ছেলে। সোহেল রানা নিজেও পেশায় আইনজীবী। গত বছর ডিসেম্বরে রাবির বাংলা বিভাগের ওই ছাত্রীর সঙ্গে সোহেল রানার বিয়ে হয়। তবে গত দু’মাস আগে ওই ছাত্রী তাকে ডিভোর্স দেন।

পরিবারের অভিযোগ, ডিভোর্সের জের ধরেই ওই ছাত্রীকে অপহরণ করেছে সোহেল। এদিকে, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা নগরীর মতিহার থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন। শুক্রবার রাতেই তিনি এ মামলা দায়ের করেন। অপহরণের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অভিযুক্ত সোহেল রানার বাবা জয়নাল আবেদীনকে আটক করেছেন নওগাঁর পত্নিতলা থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান জানান, শুক্রবার রাতেই ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা একটি মামলা করেছেন। এর প্রেক্ষিতে সোহেলের বাবাকে আটক করা হয়েছে। মতিহার থানা পুলিশের একটি দল নওগাঁ গেছেন জিজ্ঞাসাবাদের জন্য। তারা আসলে বিস্তারিত জানানো সম্ভব হবে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here