রোগ নির্মুলের সুযোগ করে দেবে ‘মলিকিউলার সিসর’

0
76

নতুন একটি জিন সম্পাদনা প্রক্রিয়া বিজ্ঞানীদের যুগান্তকারী ফলাফল এনে দিয়েছে। নতুন এই পদ্ধতিতে জেনেটিক কোডে থাকা সমস্যা চিহ্নিত করে উত্তরাধিকারসূত্রে দেহে থাকা হাজারো মারাত্মক রোগ নিরাময় করা সম্ভব বলে জানান বিজ্ঞানীরা।

মানুষের ডিএনএ ও অণু পরিবর্তন করে নতুন কৌশলটি জেনেটিক বা উত্তরাধিকারসূত্রে পাওয়া রোগ নির্মুলের সুযোগ করে দেবে ডাক্তারদের।

উত্তরাধিকারসূত্রে যেসব জিনগত পরিবর্তন বা মিউটেশন হয়, সেসব সরানোর সুযোগ দেওয়ায় নতুন পদ্ধতিতে বিজ্ঞানীরা পারিবারিক অন্ধত্ব সহ অ্যানিমিয়া ও সিস্ট ফাইব্রোসিস রোগ প্রতিকার করতে সক্ষম হয়েছে। যুগান্তকারী প্রক্রিয়ায় বিজ্ঞানীরা জিন সরানোর পাশাপাশি নতুন জিন বসানোর কাজেও সফল হয়েছেন।

গবেষণার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক লিউ বলেন, ‘আমরা নতুন একটি জিন বেস সম্পাদনা পদ্ধতি আবিষ্কার করেছি। এটি একটি মলিকিউলার মেশিন যা প্রোগ্রামযোগ্য, অপরিবর্তনীয় ও পরিষ্কার। এর ফলে জীবিত কোষের জিন সঠিক পরিবর্তন করা যেতে পারে।’

নতুন কৌশলটিকে গবেষকরা ‘মলিকিউলার সিসর’ বা আণবিক কাঁচি নাম দিয়েছেন। জিন পরিবর্তনের সরঞ্জাম হিসেবে ‘সিআরআইএসপিআর-কেস৯’ কাজে লাগানো হয়েছে। ২০১২ সালে প্রথম এই গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here