সাকিব আল হাসান বলছেন, এখানেই শেষ নয়। আরেকটা ধাপ রয়ে গেছে।

0
118
সাকিব আল হাসান বলছেন, এখানেই শেষ নয়। আরেকটা ধাপ রয়ে গেছে।
অবিশ্বাস্য জয়, আবেগের বিস্ফোরণ, উদ্দাম উল্লাস।
সবই তো হয়ে গেছে।
সাকিব আল হাসান বলছেন, এখানেই শেষ নয়। আরেকটা ধাপ রয়ে গেছে। শুক্রবার রাতের ঘটনাপ্রবাহকে মাটিচাপা দিয়ে বাংলাদেশ দল এখন মানসিকভাবে প্রস্তুত আরও বড় উত্সবের আয়োজনে।

 

স্বাগতিকদের রাজ্যের হতাশা উপহার দিয়ে বাংলাদেশ আজ নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে লড়বে ভারতের বিরুদ্ধে। প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ত্রিদেশীয় টি- টোয়েন্টি সিরিজের ট্রফি জয়ের লড়াইটা শুরু হবে স্থানীয় সময় সাতটা ও বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়।

 

ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি মিলে ২০০৯, ২০১২, ২০১৬, ২০১৮ সাল, টানা চারটি ফাইনাল। সবই স্বপ্নভঙ্গের বেদনায় পরিপূর্ণ। আজকের ফাইনালে বাংলাদেশের কোটি কোটি ক্রিকেটপ্রেমীকে গর্বের, উত্সবের মাহেন্দ্রক্ষণ উপহার দিতে চায় টাইগাররা। অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের টার্গেট একটাই, চ্যাম্পিয়ন হওয়া।

 

গতকাল প্রেমাদাসায় পড়ন্ত বিকালে অনুশীলন শেষে সাকিব বলেছেন, ‘তখন ওই সময় রিয়াদ ভাই অধিনায়ক ছিলেন। তিনি একটা লক্ষ্য পূরণ করে দিয়ে গেছে। আমার সামনে নতুন লক্ষ্য। আমার জন্য লক্ষ্য চ্যাম্পিয়ন হওয়া (হাসি)।’

 

ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ফাইনালে তুলে দিয়েছেন। অধিনায়ক সাকিব পাড়ি দিতে চান ফাইনালের বাকি অধ্যায়। আজ শ্রীলঙ্কার ছুটির দিনে প্রেমাদাসার মাটিতে ইতিহাস গড়তে চায় বাংলাদেশ। টি- টোয়েন্টি ক্রিকেটে কখনোই ভারতের বিরুদ্ধে জয় পায়নি টাইগাররা। টানা সাত হারের পর্ব শেষ করে আজ জয়ের খাতা খোলার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন সাকিব ও তার দল।

 

জয়ের সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন জানিয়ে সাকিব বলেছেন, ‘চেষ্টা তো থাকবে ভালো ক্রিকেট খেলার। অবশ্যই চেষ্টা থাকবে জয়ের। এর জন্য যা করার করব।’

 

তবে চাপমুক্ত থেকে ম্যাচটা খেলতে চান সাকিব। সতীর্থদের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছেন, চাপ ভুলে ম্যাচে ব্যাটে-বলের লড়াইয়ে ফোকাস করতে। তিনি বলেন, ‘যদি মনে করি ফাইনাল অনেক বড় ম্যাচ, ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ, তাহলে চাপ। এগুলো চিন্তা না করে বলের সঙ্গে ব্যাটের লড়াই হবে, সেদিকেই মনোযোগ থাকবে।’

 

অধিনায়ক ম্যাচটাকে দেখতে চান আর দশটা ম্যাচের মতোই। তিনি বলেছেন, ‘আমার কাছে মনে হয় না এরকম কঠিন কোনো ব্যাপার। হ্যাঁ, আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। একইভাবে এটা আরেকটা ম্যাচ। যেটা আমরা জেতার জন্য মাঠে নামবো। এবং সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো জেতার।’

 

লিগ পর্বে দুই ম্যাচেই ভারতের কাছে হেরেছিল বাংলাদেশ। তবে ব্যবধান খুব বেশি ছিল না। বাংলাদেশ দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই গতকাল বিশ্রামে ছিলেন। ভারতের পুরো দল অবশ্যঅনুশীলন করেছে। ভারতীয় ক্রিকেটার দিনেশ কার্তিক বলেছেন, ভালো একটা ম্যাচ আশা করছেন তারা। দল হিসেবেও প্রস্তুত ফাইনালের জন্য। সতীর্থদের সতর্ক করে বলে দিয়েছেন, বাংলাদেশের সঙ্গে হারলেই বিপদ।

 

স্বাগতিকরা না থাকায় ম্যাচের উত্তাপ সেভাবে নেই কলম্বোতে। শুক্রবার হূদয় পোড়ানোর কারণে আজ প্রেমাদাসার দর্শকরা বাংলাদেশের বিপক্ষেই গলা ফাটাতে পারেন।

 

বৈরী গ্যালারি, ফাইনালের বড় মঞ্চ, চাপ সব ভুলে ভারতকে হারিয়ে ইতিহাস গড়তে ব্যাটিংয়ে- বোলিংয়ে সেরা ক্রিকেটই খেলতে হবে বাংলাদেশকে।
image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here