হানিকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গিয়ে চলবে ৩০০ প্রশ্নের জিজ্ঞাসাবাদ

0
146

মঙ্গলবার চন্ডিগড়ের কাছ থেকে গ্রেফতার করা হয় ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের বিতর্কিত ধর্মগুরু গুরুমিত রাম রহিম সিংহের ‘পালিতা কন্যা’ হানিপ্রীত ইনসানকে। এরই মধ্যে দু’দফা জিজ্ঞাসাবাদে করা হয়েছে তাকে। কিন্তু পুলিশের দাবি, জিজ্ঞাসাবাদে তার কাছ থেকে কোনো সন্তোষজনক উত্তর মেলেনি।

প্রাথমিক জেরার পর এটা বুঝেছে পুলিশ যে, হানিপ্রীতি ভাঙবে কিন্তু মচকাবে না। এরপর থেকে শুরু হয় পুলিশের নতুন কৌশল। এবার হানিকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গিয়ে চলবে জিজ্ঞাসাবাদ। এজন্য তৈরি করা হয়েছে ৩০০ প্রশ্নের একটি তালিকাও।

প্রায় ৩৮ দিন পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে থাকার পর হানিপ্রীতকে গ্রেফতার সম্ভব হয়। কিন্তু জেরা করতে গিয়ে পুলিশ দেখে, হানিপ্রীত বেশ শক্ত নারী। ক্রমাগত মিথ্যা তথ্য দিয়ে একের পর এক পুলিশকে বিভ্রান্ত করেছেন তিনি। অসুস্থতার ভান ধরে হাসপাতালেও গেছেন। কখনও আবার কান্নায় ভেঙে পড়ছেন।

অবশ্য এসব কৌশলে কাজ হয়নি। শারীরিক পরীক্ষায় দেখা গেছে, পুরো সুস্থ হানি। এরপর আবার জেরা শুরু হলে বহু প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান তিনি। সাধ্বিদের সঙ্গে ডেরা প্রধান রাম রহিমের গোপন যৌনতা থেকে শুরু করে তার সাজা ঘোষণার পর সিরসার সহিংসতার ঘটনা নিয়ে হানিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। কিন্তু বেশির ভাগ প্রশ্ন হয় এড়িয়ে গেছেন, না হয় মিথ্যা উত্তর দিয়েছেন। রাম রহিম সম্পর্কেও মুখ খুলতে নারাজ তার এই কথিত পালিত কন্যা।

এরপর থেকে ভিন্ন কৌশল হাতে নেয় পুলিশ। তাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে জেরার পরিকল্পনা করা হয়। তবে হানিকে গোপন স্থানে নিতে বেশ কৌশলি হতে হয় পুলিশকে। নারী পুলিশ কর্মকর্তাকে হানিপ্রীত সাজিয়ে দু’টি আলাদা কনভয় আগে বের করে দেওযা হয়। ফলে সংবাদমাধ্যমের দৃষ্টি সেদিকে চলে যায়। এরপর আসল হানিপ্রীতকে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানের উদ্দেশে বেরিয়ে যায় পুলিশ।

জানা গেছে, হানিপ্রীতের জন্য তৈরি তিনশ’ প্রশ্নের তালিকা থেকে চলবে জিজ্ঞাসাবাদ। যতোদিন পর্যন্ত সদুত্তর না মেলে, ততোদিন অজ্ঞাত স্থানে রাখা হবে তাকে। এখন হানিপ্রীতকে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে গত ৩৮ দিনের চোর-পুলিশ খেলার পুনরাবৃত্তির অবস্থা তৈরি করছে পুলিশ। এরপর কোনো জেলখানায় নিয়ে জেরা করা হতে পারে তাকে। এবার হানিপ্রীত সত্য বলতে বাধ্য হবেন বলে আশা করছে পুলিশ।

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here