ঢাকায় নারীবান্ধব টয়লেট স্থাপনের পরিকল্পনা গৃহীত হয়েছে

0
207

এক গবেষণা জরিপে দেখা যায়, ঢাকা শহরে ৮০ শতাংশ নারী ঘর থেকে বের হওয়ার সময় পানি খান না। কারণ, এই শহরে নারীর জন্য পর্যাপ্ত টয়লেট না থাকায় পানি খেলে তাদের নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। দেশে এখনও নারীবান্ধব টয়লেটের অভাব প্রকট। চলতি পথে একজন পুরুষ বা ছেলে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে পারে। পাবলিক টয়লেট না পেলে অনেক সময় লোকচক্ষুর আড়ালে গিয়ে কোন উপায়ে কাজটি তারা সেরে নেয়। বাস্তবতা হলো, স্কুল-কলেজ-ভার্সিটিতেও নারীবান্ধব টয়লেট খুব একটা দেখা যায় না। স্ত্রী, নারী-বন্ধু কিংবা আত্মীয়কে নিয়ে রাজধানীর বিভিন্ন উদ্যানসহ দর্শনীয় স্থানে কিছুটা বিপন্ন বোধ করতে হয় নারীবান্ধব টয়লেট না থাকার কারণে।

বাড়ির বাইরে নারীদের ব্যবহার উপযোগী টয়লেট না থাকায় নানা রকম সমস্যায় পড়তে তাদের। নাগরিক জীবনে অভ্যস্ত নারীরা এ ধরনের সমস্যা মোকাবেলা করে বেশি। ঢাকা শহরে পাবলিক টয়লেট কোথাও কোথাও দেখা যায় কিন্তু এসব টয়লেট প্রায়ই থাকে ব্যবহারের অনুপযোগী, নোংরা। এছাড়া অফিস-আদালত, হাসপাতাল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, মার্কেট, শপিংমল, বাস বা রেলস্টেশনের মতো সাধারণ জায়গায়, যেখানে নারী-পুরুষ উভয়েরই যাতায়াত ও বিচরণ, সেখানে নারীরাই সবচেয়ে বেশি ভোগান্তির শিকার হয়। অনেক ক্ষেত্রে নারী ও পুরুষদের একই টয়লেট ব্যবহার করতে হয়। এতে নারীরা পড়েন সমস্যায়। এতে তাদের স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি তৈরি হয়। দেখা দেয় কিডনির সমস্যাসহ অন্যান্য রোগ।

এমন বাস্তবতায় ‘সুস্থ নারী, সুস্থ নগরী’ স্লোগান সামনে রেখে ঢাকায় প্রথমবারের মতো একটি মার্কেটে চালু হয়েছে নারীর জন্য আধুনিক, স্বাস্থ্যসম্মত ও নিরাপদ টয়লেট। এর বিশেষত্ব হচ্ছে কেবল নারীই এই টয়লেট ব্যবহারের সুবিধা পাবেন। নিরাপত্তার স্বার্থে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নিয়োজিত থাকবেন দুজন নারী কর্মচারী। এছাড়া একজন পরিচ্ছন্নতা কর্মী সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবেন। সহজে পানি নির্গমন ও পরিচ্ছন্নতা রক্ষার্থে মানসম্পন্ন উপকরণ ব্যবহার করা হয়েছে। বিষয়টি নারীদের জন্য স্বস্তিকর সুসংবাদ।

ব্র্যাকের অর্থায়নে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সহযোগিতায় ঢাকায় নারীবান্ধব টয়লেট স্থাপনের পরিকল্পনা গৃহীত হয়েছে। জনসমাগম, পথচারীর প্রবেশগম্যতা ও নিরাপত্তার বিষয় বিবেচনায় রেখে রাজধানীর ৩২টি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নারীবান্ধব টয়লেট স্থাপনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য গাউছিয়া, নিউমার্কেট, ফার্মগেট, মগবাজার, মালিবাগ, মৌচাক, উত্তরা, মহাখালী, মিরপুর। আগামী এক বছরের মধ্যে নগরীতে ১০০টি টয়লেট করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। অনেক সময় উদ্যোগ নেয়া হলেও, বেশ সাড়ম্বরে কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হলেও পরবর্তীকালে সে কাজে ভাটা পড়ে; পরিকল্পনা আর বাস্তবায়ন হয় না। নারীবান্ধব নিরাপদ টয়লেট স্থাপনের ক্ষেত্রে এমনটি হবে না সেটাই প্রত্যাশা।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here