ঈদ উদ্‌যাপিত হচ্ছে তিন জেলার ৬০ গ্রামে

0
66

প্রতিবছরের মতো এবারও সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে পটুয়াখালী, মাদারীপুর ও পিরোজপুরের বিভিন্ন গ্রামে আজ শুক্রবার পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপিত হচ্ছে। পটুয়াখালীর ২২টি গ্রামের ৫ হাজারের বেশি পরিবার, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া ও নাজিরপুর উপজেলার আটটি গ্রামের কয়েক শ পরিবার এবং মাদারীপুরে ৩০ গ্রামের মানুষ পশু কোরবানিসহ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মাধ্যমে ঈদুল আজহা উদ্‌যাপন করছে।

পটুয়াখালী: সকাল নয়টায় পটুয়াখালী সদর উপজেলার বদরপুর ইউনিয়নের বদরপুর দরবার শরিফ জামে মসজিদে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। সকাল থেকেই নতুন জামাকাপড় পরে শিশু-কিশোরসহ সবাই ঈদের নামাজ আদায় করতে সেখানে সমবেত হতে থাকে। বদরপুর দরবার শরিফ মসজিদে প্রধান ঈদের জামাতের ইমামতি করেন মসজিদের খতিব মাওলানা শফিকুল ইসলাম আবদুল গনি। নামাজ শেষে দেশ, জাতি ও বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

বদরপুর দরবার শরিফের পরিচালক মোহাম্মদ নাজমুস সায়াদাত আখন্দ জানান, এ বছর জেলার সদর উপজেলার বদরপুর ও ছোট বিঘাই, গলাচিপা উপজেলার সেনের হাওলা, পশুরীবুনিয়া, নিজ হাওলা ও কানকুনি পাড়া, বাউফল উপজেলার মদনপুরা, শাপলাখালী, বগা, ধাউরাভাঙ্গা, সুরদী, সাবুপুরা ও আমিরাবাদ এবং কলাপাড়া উপজেলার লালুয়া, নিশানবাড়িয়া, মরিচবুনিয়া, উত্তর লালুয়া, মাঝিবাড়ি, টিয়াখালীর ইটবাড়িয়া, পৌর শহরের নাইয়াপট্টি, বাদুরতলী এবং মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নের সাফাখাল গ্রামের ৫ হাজারেরও বেশি পরিবার আগাম ঈদুল আজহা উদ্‌যাপন করছে।

পিরোজপুর: সকাল ১০টায় মঠবাড়িয়া উপজেলার সাপলেজা ইউনিয়নের ভাইজোড়া গ্রামের খোন্দকার বাড়ি ও কচুবাড়িয়া গ্রামের হাজি ওয়াহেদ আলী হাওলাদার বাড়িতে ঈদের দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। আর সকাল নয়টায় নাজিরপুর উপজেলার খেজুরতলা বাজারের একটি মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করা হয়। তবে আজ ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করলেও তাঁরা আগামীকাল শনিবার পশু কোরবানি দেবেন।

কচুবাড়িয়া গ্রামের ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক সদস্য ফরহাদ হোসেন জানান, কচুবাড়িয়া গ্রামের প্রয়াত হাজি ওয়াহেদ আলী হাওলাদার, শীতল খান, হাজি সমিরুদ্দিন অষ্টাদশ শতকের শেষদিকে সুরেশ্বর গ্রামের পীর মরহুম হজরত মাওলানা জান শরিফকে কচুবাড়িয়ায় নিয়ে আসেন। সেই থেকে হাজি ওয়াহেদ আলী হাওলাদার তাঁর অনুসারীদের নিয়ে কচুবাড়িয়া ও ভাইজোড়া গ্রামে প্রথম সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোজা রাখা ও ঈদ উদ্‌যাপন শুরু করেন। ধীরে ধীরে তাঁদের অনুসারীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে আশপাশের গ্রামগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে।

নাজিরপুরের শেখ মাটিয়া ইউপির চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান হাওলাদার বলেন, ১১ বছর ধরে আহলে হাদিসের অনুসারী শেখ মাটিয়া ইউনিয়নের লঘুনাথপুর ও খেজুরতলা গ্রামের ৭০টি পরিবার সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোজা রাখা ও দুটি ঈদের নামাজ আদায় করে আসছে।

মাদারীপুর: জেলার চারটি উপজেলার ৩০ গ্রামের প্রায় ৫০ হাজার মানুষ শুক্রবার ঈদুল আজহা উদ্‌যাপন করেছে। বেশ কয়েকটি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হলেও প্রধান ও বড় জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে সদর উপজেলার তাল্লুক গ্রামের চরকালিকাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে। সকাল ১০টায় এ জামাতে ইমামতি করেন আবদুল হাশেম ফকির। তাল্লুক গ্রামের বাসিন্দা মোমেন আহমেদ বলেন, ‘আমরা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঈদুল আজহা পালন করি। আর এটাই আমাদের বড় আনন্দ।’

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here