পায়ুপথে কম্প্রেসার মেশিন দিয়ে বাতাস দেয়ায় এক শ্রমিকের মৃত্যু

0
66

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের আইসিইউতে থাকার পর শুক্রবার বেলা ২টা ৫০ মিনিটে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সকালে কাহালু উপজেলার বীরকেদার এলাকায় এবি টাইলস নামে একটি সিরামিক কারখানায় সহকর্মী রুবেল হোসেন (২৪) জোরপূর্বক তার পায়ুপথে বাতাস দিয়েছিল। কারখানার লোকজন তাকে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন।

শজিমেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক নির্মলেন্দু চৌধুরী জানান, রাসেলকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তার নাড়িভুড়ি ছিঁড়ে ও লিভার অকেজো হয়ে যাওয়ায় সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

কাহালু থানার ওসি নুর-ই-আলম সিদ্দিকী জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রুবেল তার অপরাধ স্বীকার করেছে। মামলার পর তাকে আদালতে হাজির করে স্বীকারোক্তি রেকর্ড করানো হবে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, আবুল কালাম আজাদ নামে এক ব্যক্তি কাহালুর বীরকেদার এলাকায় এবি টাইলস নামে সিরামিক কারখানা স্থাপন করেন। সেখানে কাহালুর মীরপাড়া গ্রামের আবদুল হান্নানের ছেলে রাসেল মিয়া ও একই উপজেলার নওদাপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে রুবেল হোসেন মেশিন পরিষ্কারের কাজ করতেন। বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত তাদের কাজ ছিল।

কারখানার ম্যানেজার কামরুজ্জামান জানান, শুক্রবার ৭টার দিকে কাজ চলাকালে শ্রমিক রুবেল অজ্ঞাত কারণে মেশিন পরিষ্কার করার কম্প্রেসারের পাইপ রাসেলের পায়ুপথে ঢুকিয়ে হাওয়া দেয়। এতে রাসেল অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে দ্রুত বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ছাড়া রুবেলকে আটক করে কাহালু থানা পুলিশে দেয়া হয়েছে।

শজিমেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক নির্মলেন্দু চৌধুরী জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে অচেতন অবস্থায় রাসেলকে ভর্তি করা হয়। তাকে দ্রুত আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছিল। পায়ুপথে বাতাস দেয়ায় তার নাড়িভুড়ি ছিঁড়ে যায় এবং লিভার অকেজো হয়ে পড়ে। দ্রুত প্রেসার নেমে যায়। অনেক চেষ্টা করেও তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। বেলা ২টা ৫০টা মিনিটে রাসেল মারা যান।

কাহালু থানার ওসি নুর-ই-আলম সিদ্দিকী জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রুবেল তার অপরাধ স্বীকার করেছে। হত্যা মামলা হওয়ার পর তাকে আদালতে হাজির করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করানো হবে। এ ছাড়া ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হবে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here