`নগ্ন ভিডিও ও ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইলিং’ গ্রেপ্তার ৪ সদস্য

0
49

কথা আছে বলে রাস্তা থেকে এক রিকশাচালককে ফ্ল্যাটে নিয়ে আটকে অন্য নারীর সঙ্গে নগ্ন ভিডিও ও ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইলিং করতে গিয়ে র‌্যাবের জালে ধরা পড়েছে চক্রের নারীসহ ৪ সদস্য। এ সময় তাদের কবল থেকে অপহৃত রিকশাচালক মহরম আলী (২৫) কে উদ্ধার করা হয়েছে। চক্রের সদস্য ওই ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ১ লাখ টাকা দাবি করে ওই রিকশাচালকের কাছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- রূপগঞ্জের মাঝিপাড়া এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে মনির ভূঁইয়া ওরফে আজাদ (৩৫), মাদারীপুরের শিবচরের চর সামাইল বেপারি বাড়ির মৃত সেকান্দার বেপারির ছেলে আক্তার (৪০), লক্ষ্মীপুর জেলার রাজিবপুরের মৃত মফিজ খানের ছেলে ইমাম হোসেন (২৮) ও নেত্রকোনার কেন্দুয়ার বিদ্যা বলয়ের মৃত রইজ উদ্দিনের মেয়ে শারমিন আক্তার ওরফে হ্যাপি (২৫)। গত ৩০শে সেপ্টেম্বর গভীর রাতে র‌্যাব-১১ সিপিএসসি এর সিনিয়র এএসপি মো. জসিম উদ্দীন চৌধুরীর নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল সিদ্ধিরগঞ্জের মুক্তিনগর নয়াআটি এলাকায় ব্লক-এ, রোড-৭ অরুনী কুঞ্জের ৪র্থ তলায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে। এ সময় অপহরণকারী চক্রের অপর সদস্য মো. ইউসুফ (৩৫) কৌশলে পালিয়ে যায়। সে ভোলার গৌরনদীর কাচিরার ইদ্রিসের ছেলে। গতকাল দুপুরে র‌্যাব-১১ প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানায়। র‌্যাব জানায়, অপহৃত মহরম আলী পেশায় একজন রিকশাচালক। তাকে কৌশলে অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা কথা আছে বলে ওই ফ্ল্যাটে নিয়ে যায়। পরে ফ্ল্যাটের দরজা আটকে জোরপূর্বক জামা-কাপড় খুলে নগ্ন করে অপহরণ চক্রের এক মহিলার সঙ্গে অন্তরঙ্গভাবে ভিডিও ও স্থির ছবি ধারণ করে। এবং ধারণকৃত ভিডিও ও ছবি ভিকটিমের পরিবারের কাছে ও ইন্টারনেটে ছেড়ে দিবে বলে তাকে হুমকি দেয়। একপর্যায়ে অপহরণ চক্রের অন্য সদস্যরা ছদ্মবেশে নিজেদেরকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে অশ্লীল কাজ করার অপরাধে ওই রিকশাচালকের কাছে ১ লাখ টাকা দাবি করে এবং পরিবারের কাছ থেকে ওই টাকা এনে দেয়ার জন্য চাপ দেয়। এমনকি দ্রুত বিকাশে টাকা না পাঠালে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। র‌্যাব আরো জানায়, এই অপহরণকারীচক্র তাদের নারী সদস্যদের দিয়ে বিভিন্ন পেশার মানুষকে টার্গেট করে প্রেমের ফাঁদ পেতে ভাড়া করা ফ্ল্যাটে নিয়ে যায়। পরে জিম্মি করে মেয়েদের সঙ্গে অশ্লীল ভিডিও ও ছবি ধারণ করে ব্ল্যাকমেইলিং করে। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here