আবারও স্থগিত ফার্স্ট ফাইন্যান্সের এজিএম

0
78

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠান ফার্স্ট ফাইন্যান্স লিমিটেডের বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আবারও স্থগিত করে দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার রাজধানীর ট্রাস্ট মিলনায়তনে কোম্পানিটির এজিএম হওয়ার কথা ছিল।

হাইকোর্টে এই দফায় রিট করেন ইব্রাহিম খলিল নামের আরেক শেয়ারহোল্ডার। গতকাল মঙ্গলবার শুনানি শেষে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের যৌথ বেঞ্চ কোম্পানিটির এজিএম অনুষ্ঠান দুই মাসের জন্য স্থগিত করেন।

রিটকারীর আইনজীবী আশরাফুল আলমের চেম্বার সূত্রে পাওয়া ‘আইনজীবী সনদ’ থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানিটির এজিএম এর আগে হওয়ার কথা ছিল গত ১৫ জুন। কিন্তু প্রভিশন ঘাটতি থাকা সত্ত্বেও ৫ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করার অভিযোগে আনোয়ারুল ইসলাম নামের এক শেয়ারহোল্ডার আদালতে রিট আবেদন করলে আগের দিন ১৪ জুন হাইকোর্ট বিভাগের এক যৌথ বেঞ্চ এজিএম অনুষ্ঠানটি স্থগিত করে দিয়েছিলেন।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা গেছে, ফার্স্ট ফাইন্যান্স নিম্নমানের ‘জেড’ শ্রেণির কোম্পানি। কোম্পানিটি গত এপ্রিলে ৫ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করে, যারপর থেকে এর শেয়ারের দাম বাড়তে থাকে। বিনিয়োগকারীরা বলছেন, এজিএমে ৫ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন পেলে কোম্পানিটি ‘বি’ শ্রেণিতে উন্নীত হতে পারবে। গতকাল ডিএসইতে ১০ টাকা ফেসভ্যালুর (অভিহিত মূল্য) শেয়ার ১৩ টাকা ৮০ পয়সা দরে কেনাবেচা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বরভিত্তিক কোম্পানিটির প্রভিশন ঘাটতি ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা। বাংলাদেশ ব্যাংক গত ১৯ এপ্রিল এক চিঠিতে কোম্পানিটিকে আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে চার কিস্তিতে ঘাটতির পুরো টাকা সংরক্ষণ করতে বলেছে।

জানা গেছে, আর্থিক প্রতিষ্ঠানে আমানতের বিপরীতে সুদ প্রভিশন করার নিয়ম বাধ্যতামূলক থাকলেও ফার্স্ট ফাইন্যান্স তা করেনি। এটা করা হলে ঘাটতির আকার আরও বাড়বে।

ফার্স্ট ফাইন্যান্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মুহসিন মিয়ার কাছে গত রাতে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি আদালতের নির্দেশনার বিষয়ে আইনজীবীর সনদ পেয়েছেন বলে জানান, তবে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

ফার্স্ট ফাইন্যান্সের ওয়েবসাইটে গত রাতে দেখা যায়, হাইকোর্টের স্থগিতাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে এজিএম স্থগিত করা হলো। এজিএমের পরের তারিখ যথাসময়ে জানানো হবে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here