দৈন্যদশায় চলছে কুমিল্লার বিবিরবাজার স্থলবন্দর

0
101

কুমিল্লার বিবিরবাজার স্থলবন্দর দৈন্যদশায় চলছে। শুল্কস্টেশন ভবনের জরাজীর্ণ অবস্থা। রাস্তাঘাট ভাঙাচোরা। নামে স্থলবন্দর হলেও এখনো অবকাঠামো গড়ে ওঠেনি। এই বন্দর দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরায় কয়েকটি পণ্য রপ্তানি হলেও সেখান থেকে তেমন আমদানি হচ্ছে না। চলতি বছর এ পর্যন্ত আমদানি হয়েছে মাত্র ৫ হাজার কেজি বেল!

শুল্ক বিভাগের স্থানীয় কর্মকর্তারা বাংলাদেশনিউজ২৪.ওআরজি-কে জানান, ভারতের এ রাজ্যে উৎপাদিত পণ্যের সংখ্যা একেবারেই কম। তাই রাজ্যটি থেকে বাংলাদেশে আমদানি নেই বললেই চলে। তবে চোরাইপথে আনারস, কাঁঠাল, বেল, মসলা, গরু, শাড়ি, কসমেটিকস বা প্রসাধনী আসে। আর বাংলাদেশ থেকে সিমেন্ট, পাথর, রড, প্লাস্টিকের সামগ্রী, ঢেউটিন, টাইলস, চুন প্রতিদিনই রপ্তানি হচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কুমিল্লা নগরের তেলিকোনা পাল এন্টারপ্রাইজের মালিক নির্মল পাল গত ৩১ মে ত্রিপুরা থেকে ৫ হাজার কেজি বেল আমদানি করেন। এর বিপরীতে তাঁর কাছ থেকে রাজস্ব পাওয়া গেছে ৩১ হাজার ২৭৪ টাকা। এটাই হলো চলতি বছরে আট মাসে পণ্য আমদানি ও শুল্ক আদায়ের একমাত্র ঘটনা।

তবে কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের বিবিরবাজার এলাকায় স্থাপিত এই স্থলবন্দর ও ত্রিপুরার শ্রীমন্তপুর এলাকা দিয়ে অবশ্য প্রতিদিন যাত্রী পারাপার চলে। স্থলবন্দর সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে এখান দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে এসেছেন ৫ হাজার ৪১৯ জন এবং এ দেশ থেকে ভারতে গেছেন ৪ হাজার ৬২৭ জন যাত্রী। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ত্রিপুরা থেকে এসেছেন ৫ হাজার ৯১২ জন, বাংলাদেশ থেকে গেছেন ৬ হাজার ১৩৩ জন। গত জুলাই মাসে ভারত থেকে এ দেশে আসেন ৮০৮ জন যাত্রী। বাংলাদেশ থেকে যান ৭৩৩ জন।

শুল্কস্টেশনের বেহাল দশা

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা যায়, বিবিরবাজার স্থলবন্দরের শুল্কস্টেশন ভবনের পলেস্তারা খসে পড়েছে। মেঝের অবস্থা ভাঙাচোরা। অপরিষ্কার ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসে আছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তিন কক্ষের এই ভবনের চেয়ার-টেবিলে ধুলা জমে আছে। রাজস্ব কর্মকর্তার পদ বর্তমানে শূন্য। আছেন কেবল তিনজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা ও তিনজন উপপরিদর্শক।

কুমিল্লা নগরের রেসকোর্স এলাকার বাসিন্দা রেজাউল করিম অভিযোগ করে বলেন, এই শুল্কস্টেশনে যাত্রীদের বসার জায়গা পর্যন্ত নেই।

সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা সাধন জিত চাকমা বলেন, শুল্কস্টেশন ভবনের খারাপ অবস্থার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জানে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here