রূপালী ব্যাংকে আবার বেকায়দায় সিবিএ

0
33

বরখাস্ত হওয়া সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে নিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন করতে গিয়ে বেকায়দায় পড়েছে রাষ্ট্রমালিকানাধীন রূপালী ব্যাংকের কর্মচারী ইউনিয়ন (সিবিএ)। ২৩ আগস্ট বিকেলে ওই আলোচনা সভা হবে বলে ব্যাংকটির বিভিন্ন শাখায় পোস্টার করা হয়েছে। যাতে অতিথি হিসেবে দুজন মন্ত্রীসহ আওয়ামী লীগের নেতাদের উপস্থিত থাকার কথা জানানো হয়েছে। ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওই আলোচনায় উপস্থিত থাকবেন বলে পোস্টারে উল্লেখ করা হয়েছে, এতেই আপত্তি তুলেছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। না জানিয়েই তাঁদের নাম ব্যবহার করা হয়েছে বলে এক নোটিশে সব কর্মকর্তাকে অবহিত করেছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

ব্যাংকের স্থানীয় কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের লাঞ্ছিতের ঘটনায় গত ১৯ জুলাই সিবিএ সভাপতি খন্দকার মোস্তাক আহাম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক কাবিল হোসেন কাজী ও এক অফিস সহকারী স্থায়ীভাবে বরখাস্ত হন। এরপর বিভিন্ন মাধ্যমে চেষ্টা করেও বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহার হয়নি। এর মধ্যে সিবিএর উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য বিভিন্ন শাখায় পোস্টার লাগানো হয়। ৯ আগস্ট ব্যাংকের এক নোটিশে বলা হয়, সিবিএর নাম ব্যবহার করে আলোচনা সভা আয়োজনের জন্য পোস্টার করা হয়েছে। এতে সিবিএ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে যাঁদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে, তাঁরা ব্যাংকে কর্মরত নেই। পোস্টারে উল্লেখ করা হয়েছে ব্যাংকের চেয়ারম্যান মনজুর হোসেন ও এমডি আতাউর রহমান প্রধান উপস্থিত থাকবেন। কিন্তু তাঁদের কোনো সম্মতি নেওয়া হয়নি।

সিবিএর সাধারণ সম্পাদক কাবিল হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ‘যথাযথ অনুমোদন নিয়েই পোস্টার করা হয়েছে। ব্যাংকে চাকরি না করলেও শ্রমিক ইউনিয়ন করা যায়। আমাদের মামলা শ্রম আদালতে চলমান রয়েছে।’

প্রতিবাদ: গত ১৩ জুলাই ও ২০ জুলাই প্রথম আলোর বাণিজ্য পাতায় রূপালী ব্যাংকের সিবিএ–সংক্রান্ত প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে সংগঠনটি। সিবিএ বলছে, তাদের বক্তব্য ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। সিবিএকে ধ্বংস করতে প্রথম আলো হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

প্রতিবেদকের বক্তব্য: ঘটনার সরেজমিন পরিদর্শন ও যথাযথ তথ্য–প্রমাণের ভিত্তিতেই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদন দুটিতে সিবিএ সভাপতির বক্তব্যও রয়েছে।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here