নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানি বিবিএস কেবলসের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি অব্যাহত | ব্যাংক খাতের মূল্য সংশোধনে কমেছে সূচক ও লেনদেন

0
243

ব্যাংক খাতের শেয়ারের মূল্য সংশোধনে গতকাল মঙ্গলবার দেশের শেয়ারবাজারের সূচক ও লেনদেন উভয়ই কমেছে। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স এদিন ১৬ পয়েন্ট কমেছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচকটি কমেছে ৪৫ পয়েন্ট। পাশাপাশি উভয় বাজারে লেনদেনও কমে গেছে। ঢাকার বাজারে গতকাল দিন শেষে লেনদেনের পরিমাণ আগের দিনের চেয়ে ২৪২ কোটি টাকা কমে নেমে এসেছে ৯৪৫ কোটিতে। চট্টগ্রামের বাজারে লেনদেন আগের দিনের চেয়ে ১৩ কোটি টাকা কমে নেমে এসেছে ৫৫ কোটিতে।

এদিকে সম্প্রতি তালিকাভুক্ত কোম্পানি বিবিএস কেবলসের শেয়ারের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। গতকাল দিন শেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দাম আগের দিনের চেয়ে ৪ টাকা বা ৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ১০৬ টাকায়। তাতে ঢাকার বাজারে মঙ্গলবারও মূল্যবৃদ্ধির শীর্ষ দশ কোম্পানির তালিকায় ছিল বিবিএস কেব্‌লস।

প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিওতে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ার ১০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। গত ৩১ জুলাই শেয়ারবাজারে কোম্পানিটির লেনদেন শুরু হয়। তাতে সাত কার্যদিবসে ১০ টাকা মূল্যের শেয়ারের দাম প্রায় সাড়ে ১০ গুণ বেড়েছে।

সাত দিনে প্রায় সাড়ে দশ গুণ মূল্যবৃদ্ধিকে অস্বাভাবিকই মনে করছেন বাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। এ কারণে ডিএসইর পক্ষ থেকে অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণ জানতে চেয়ে গত সোমবার কোম্পানির কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেওয়া হয়। ডিএসইর চিঠির জবাবে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়, অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির মতো অপ্রকাশিত কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য কোম্পানির কাছে নেই। অর্থাৎ মূল্যবৃদ্ধির কারণ জানা নেই কোম্পানির।

এদিকে ঢাকার বাজারে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে ছিল বস্ত্র খাতের কোম্পানি সিএন্ডএ টেক্সটাইল। এদিন এককভাবে ডিএসইতে কোম্পানিটির প্রায় ৪৪ কোটি টাকার শেয়ারের হাতবদল হয়। দিন শেষে প্রতিটি শেয়ারের দাম ১ টাকা বা পৌনে ৮ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ টাকা ৮০ পয়সায়।

মূল্যবৃদ্ধিতে মঙ্গলবার ডিএসইতে শীর্ষে ছিল বিডি ল্যাম্পস। এদিন কোম্পানিটির লভ্যাংশ ঘোষণার খবর প্রকাশ করা হয় স্টক এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইটে। ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ১৮ মাসের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করে। এ খবরে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারের ইতিবাচক প্রভাব পড়ে। দিন শেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দাম ২২ টাকা ৮০ পয়সা বা প্রায় সাড়ে ১২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০৪ টাকায়।

মার্চেন্ট ব্যাংক আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টসের গতকালের বাজার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্যাংক খাতের শেয়ার থেকে বিনিয়োগকারীরা মুনাফা তুলে নিয়েছেন এদিন। তাই এ খাতের শেয়ারের মূল্য সংশোধন হয়েছে, যা বাজারের সূচক ও লেনদেনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। এর ফলে ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ আগের দিনের চেয়ে প্রায় ২০ শতাংশ কমে যায়। তবে দিন শেষে লেনদেনে আধিপত্য ধরে রেখেছে ব্যাংক খাত। ডিএসইর গতকালের মোট লেনদেনের প্রায় ৩২ শতাংশই ছিল এ খাতের দখলে।

ডিএসইর ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, ঢাকার বাজারে গতকাল লেনদেন হওয়া ৩০ ব্যাংকের মধ্যে ২৩টিরই দাম কমেছে। বেড়েছে মাত্র ৪টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৩টির দাম। মূল্য বৃদ্ধি পাওয়া ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের শেয়ারের দাম। এদিন ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের প্রতিটি শেয়ারের দাম সাড়ে ৪ টাকা বা সাড়ে ৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২৮ টাকা ২০ পয়সায়।

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here