কিশোরীকে এক দঙ্গল ইঁদুরের হামলা

0
64

প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে বাগে পেয়ে কামড়ে ক্ষতবিক্ষত করেছে এক দঙ্গল ইঁদুর। তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। সামান্থা নামের ওই কিশোরীর শরীরে ২২৫টি কামড়ের ক্ষত ছিল।
গত শনিবার সকালে ফ্রান্সের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় হুঁবে এলাকার এক ভাড়াবাড়ির নিচতলা থেকে আশঙ্কাজনকভাবে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে ওই কিশোরীকে। সে প্যারাপ্লেজিয়ায় (নিম্নাঙ্গের অসাড়তা) আক্রান্ত।
প্রতিদিনের মতো নিচতলার শয়নকক্ষে সে ঘুমোচ্ছিল। সকালে কিশোরীর বাবা মেয়েটির ঘরে গিয়ে দেখেন বিছানা রক্তে ভেসে যাচ্ছে। ফরাসি সংবাদমাধ্যম ফ্রান্স ইনফোকে কর্তব্যরত এক চিকিৎসক জানান, কিশোরীর মুখে ৪৫টি কামড়ের ক্ষত ছিল, হাতে ছিল ১৫০টি, পায়ে ৩০টি।
আক্রান্ত কিশোরীর বাবা ভবনটির ওপরের তলায় থাকেন। তিনি জানান, সবকিছু ঠিকঠাক দেখে তিনি ঘুমোতে যান। স্থানীয় সংবাদপত্র ‘কুরিয়ার পিকার্ড’কে তিনি বলেন, ‘সামান্থার কান থেকে রক্ত পড়ছিল। তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হচ্ছে বলে আমি ভয় পেয়ে যাই।’ মেয়েটির আঙুলের ডগাগুলো এমনভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যে চিকিৎসকেরা আর সেগুলোকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে পারবেন না।
পরিবারটি এখন ওই বাসা ছেড়ে অন্য বাসায় চলে যাচ্ছে। ঘটনাটি তদন্ত করছে পুলিশ। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জলাতঙ্কসহ সামান্থার সম্ভাব্য সব ধরনের রোগ সংক্রমণের মেডিকেল পরীক্ষা করছে। অবশ্য জলাতঙ্কের সংক্রমণের প্রমাণ পাওয়া যায়নি।
মানুষের ওপর ইঁদুরের এ ধরনের সহিংস আক্রমণের ঘটনা বিরল। যদিও ক্ষুধার্ত ইঁদুরেরা মাঝেমধ্যে মৃতদেহ খেয়ে থাকে।
কিশোরীর বাবা এ ঘটনার জন্য বাড়ির মালিকের অবহেলাকে দায়ী করেছেন। ভাড়াবাড়িটার পাশের ময়লার ঝুড়িগুলোতে ময়লা উপচে পড়ছিল।
বিবিসি অনলাইন অবলম্বনে মেহেদি রাসেল

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here