বাংলাদেশের বিপক্ষে ভাগ্য ফিরবে পারনেলের?

0
56

দুর্বোধ্য এক ধাঁধায় আটকে আছেন ওয়েইন পারনেল। মাত্র ৫ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে সর্বশেষ ম্যাচে ৬ উইকেট নিয়েও দক্ষিণ আফ্রিকার এই পেসার টেস্ট দলে ব্রাত্য। বাংলাদেশের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজ দিয়ে কি দলে ফিরতে পারবেন পারনেল?

গত জানুয়ারিতে জোহানেসবার্গে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্ট খেলেন পারনেল। লঙ্কানদের প্রথম ইনিংসে ৩৮ রানে ২ উইকেট নিলেও দ্বিতীয় ইনিংসে ৫১ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছিলেন এই বাঁহাতি। প্রোটিয়ারা সেই টেস্ট এক ইনিংস ও ১১৮ রানে জিতলেও ভাগ্য সুপ্রসন্ন হয়নি পারনেলের। গত মার্চে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে স্কোয়াডে থাকলেও তাঁর মাঠে নামা হয়নি। এরপর জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের মাটিতে ৪ ম্যাচের টেস্ট সিরিজে তো স্কোয়াড থেকেই বাদ পড়েছেন।
পারনেল ঠিক কী কারণে দল থেকে বাদ পড়েছেন, তা নিজেও জানেন না, ‘আমি নিশ্চিত নই বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজে দলে আমার জায়গা আছে কি না। দলে আমার ভূমিকা কী হবে, সেটাও জানি না। আমি জানি না কেন আমাকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বাদ দেওয়া হয়েছিল। নতুন বোলিং কোচ এসেছেন, দেখি কী হয়।’
ইনজুরির কারণে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে থাকছেন না ডেল স্টেইন ও ভারনন ফিল্যান্ডার। অর্থাৎ দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট স্কোয়াডে জায়গা পেতে পারনেলকে লড়তে হবে মরকেল, কাগিসো রাবাদা, ডুয়ান অলিভিয়ের ও অলরাউন্ডার ক্রিস মরিসের বিপক্ষে। ইংল্যান্ডে শেষের দুজনের পারফরম্যান্স ভালো নয়। তবে পারনেলের লড়াইটা মূলত মরিসের সঙ্গেই।
মরিস ও পারনেল দুজনেই ধারাবাহিক পারফরম্যান্সে ব্যর্থ। প্রতি টেস্ট উইকেটের জন্য গড়ে ৩৮.২৫ রান খরচ করেছেন মরিস। সেখানে পারনেলের গড় ২৬.৮৯। মূল পার্থক্যটা এখানেই। সদ্যসমাপ্ত ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের পুরোটায় বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের হয়ে খেলেছেন পারনেল। এখন দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া আসরে ভালো খেলে টেস্ট স্কোয়াডে দলে ফিরতে চান পারনেল, ‘আমি ভালো বোধ করছি। সিপিএল খেলার সময় ফিটনেস নিয়ে কাজ করেছি জিমে। সান ফয়েল সিরিজে খেলার জন্য মুখিয়ে আছি।’
নতুন কোচ ওটিস গিবসন অবশ্য খাতা-কলম নিয়েই সান ফয়েল সিরিজে চোখ রাখবেন। পারনেল খেলবেন কেপ কোবরার হয়ে, আর মরিস আছেন টাইটানসে। এই সিরিজের পরই টেস্ট দল ঘোষণা করবে দক্ষিণ আফ্রিকা। (সূত্র: আইওএল)

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here