সেমিফাইনালে বাংলাদেশ দল

0
315
টুর্নামেন্ট শুরুর আগে কারো হিসাবের খাতাতেও ছিল না বাংলাদেশের নাম। ক্রিকেট বিশ্বের প্রতিষ্ঠিত সব বিশ্লেষকদের প্রায় কেউই শেষ চারে বাংলাদেশকে দেখছিলেন না। অথচ মাশরাফি বিন মুর্তজার দল সব হিসাব-নিকাশ ওলট-পালট করে দিয়ে চলে গেল শেষ চারে।
কোনো কিছুই যেহেতু অসম্ভব নয়, ‘গ্রুপ অব ডেথ’ থেকে সেমিফাইনালে ওঠাই বা তা হবে কেন? ‘গ্রুপ অব ডেথ’-ই তো! গ্রুপে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। তিনটিই বাংলাদেশের চেয়ে র‍্যাঙ্কিংয়ে ওপরে। মাশরাফির মনে যত ‘বড় চিন্তা’ই থাক, এই গ্রুপ থেকে বাংলাদেশ সেমিফাইনালে যাবে, এটা একটু আকাশকুসুম কল্পনাই ছিল। অথচ সেটিই এখন ঘোরতর বাস্তব এবং ‘কোনো কিছুই অসম্ভব নয়’ মনে করা মাশরাফিও যেন একটু হকচকিয়ে গেছেন!
আইসিসির স্বপ্নকেও ছাড়িয়ে গেছে এবারের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। গ্রুপ পর্বের শেষ চারটি ম্যাচই পরিণত হয়েছে নকআউটে। ‘বি’ গ্রুপে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা ও পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা তো আক্ষরিক অর্থেই ‘কোয়ার্টার ফাইনাল’। এমনই মজার টুর্নামেন্ট যে সেমিফাইনাল নিয়ে ইংল্যান্ড বা বাংলাদেশের হোমওয়ার্ক করার কোনো উপায় নেই। চার দলের যেকোনোটির বিপক্ষেই যে খেলতে হতে পারে!
আজ বাদে কাল সেই মহারণ। বার্মিংহ্যামের এজবাস্টনে সেটাও আবার আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারতের বিপক্ষে। নি:সন্দেহে এই ম্যাচটা সহজ হওয়ার কথা নয় বাংলাদেশের।  যদিও, বাংলাদেশ বিনা লড়াইয়ে হাল ছাড়বে না বলে মনে করছেন সৌরভ গাঙ্গুলি ও শেন বন্ডের মত কিংবদন্তিরা।

ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান টুডেকে সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি বলেন, ‘কাগজে কলমে দক্ষিণ আফ্রিকা অবশ্যই ভালো দল কিন্তু চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে তাদের পারফর?ম্যান্স খুবই খারাপ ছিল। অন্যদিকে বাংলাদেশ দক্ষিণ আফ্রিকার তুলনায় দুর্বল দল হলেও তারা দারুণ লড়াই করবে বলেই আমার মনে হয়। কারণ, তাদের ব্যাটিং লাইন-আপ ভালো। তারা স্পিন ভালো খেলতে পারে, এমনকি তাদের বোলাররাও ভালো করছে।’

সেমিফাইনালে বাংলাদেশের সম্ভাবনা দেখছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক স্পিডস্টার শেন বন্ডও। হিন্দুস্তান টাইমসকে  দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে তিনি দাবি করেন, যেকোনো কন্ডিশনেই বাংলাদেশ এখন শক্ত প্রতিপক্ষ।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের দলে অনেক প্রতিভাবান ক্রিকেটার রয়েছে। তারা সেমি-ফাইনালে গিয়ে কিছু করতে পারলে অনেক আনন্দের বিষয় হবে।  দেশের বাইরেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলে ম্যাচ জেতা শিখে গেছে বাংলাদেশ। যেকোনো কন্ডিশনে তাদের হারানো কঠিন প্রমাণ করছে তারা।’

শেন বন্ড সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ধারাবাহিক উন্নতিতে মুগ্ধ। একই সাথে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচে দলটির লড়াকু মানসিকতারও প্রশংসা ঝরলো তার কণ্ঠে।

তিনি বলেন, ‘পুরো কৃতিত্বই বাংলাদেশের। এটা আসলে নতুন করে বলার প্রয়োজন নেই। গত চার-পাঁচ বছর ধরে ঘরের মাটিতে তাদের হারানো কষ্টসাধ্য হয়ে উঠেছে। এটা চান্দিকা হাতুরুসিংহের হাত ধরে শুরু এবং তারা ধারাবাহিক ভাবে উন্নতি করছে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩৩ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর তারা যেভাবে ম্যাচটি শেষ করেছে তার মাধ্যমে তাদের লড়াকু মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ ঘটে।’

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে প্রস্তুতি ম্যাচে এই ভারতের বিপক্ষেই ৮৪ রানে অলআউট হয়েছিল বাংলাদেশ। ফলে সেটা বাড়তি একটা চাপ বাংলাদেশের জন্য। সৌরভও তাই মানছেন, ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের জন্য ম্যাচটা কঠিন হবে।

তিনি বলেন, ‘ভারতের মতো এমন বিধ্বংসী দলকে মোকাবেলা করার মতো শক্তিশালী দল বাংলাদেশ কিনা সে বিষয়ে আমি নিশ্চিত নই। ভারতকে মোকাবেলা করা বাংলাদেশের জন্য কঠিন হবে।’

image_pdfimage_printPrint

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here